কুতুবদিয়া প্রতিনিধি:

কক্সবাজারের কুতুবদিয়ায় মাদক সেবন করার সময় বাধা দেওয়ায় চায়ের দোকানে ভাংচুর ও দুই কর্মচারীকে দা, লোহার রড দিয়ে বেধড়ক কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করেছে মাদক কারবারিরা।

আহতরা হলেন, আলী আঃ ডেইল ইউনিয়নের সদ্বিপী পাড়া ৫নং ওয়ার্ড়ের ছৈয়দ আলমের ছেলে শাহেদুল ইসলাম(১৭), মৃত নুরুল আলমের ছেলে আবু ছাদেক(২৩)।

খবর পেয়ে এলাকাবাসী ও চা দোকানের মালিক শওকত আলম (৩২) এসে তাদের উদ্ধার করে দ্রুত কুতুবদিয়া হাসপাতালে নিয়ে যায়। গত বুধবার (২২ সেপ্টেম্বর) দিবাগত রাত সাড়ে ৭টার দিকে আলী আকবর ডেইল ইউনিয়নের তুলাতলী এলাকা সংলগ্ন দোকনে এ ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে , দীর্ঘ দিন ধরে অভিযুক্তরা এ চায়ের দোকানে বসে মাদক সেবন ও কেনাবেচা করত বলে শওকত আলম (৩২) তাদেরকে প্রায়ই নিষেধ করতেন। একপর্যায়ের তাদের দোকানের সামনে আসতেও নিষেধ করেছেন। প্রতিদিনের মত আবারও চায়ের দোকানে বসে চায়ের কাপ নিয়ে মাদক সেবন করার সময় বাধা দিলে এতে ক্ষুব্ধ হয়ে ইয়াছিন(২২), ওয়াজিব(১৮),সোনা মিয়া (৩৭) অজ্ঞাত নামা কয়েক জন মিলে কর্মচারী শাহেদুল ইসলাম(১৭), আবু ছাদেক (২৩) কে দা দিয়ে হাতে কোপ দিয়ে রক্তাক্ত গুরুতর জখম করে এবং লোহার রড দিয়ে শরীরের বিভিন্ন স্থানে গুরুতর জখম করে। এমন অমানবিক নির্যাতন দেখে স্থানীয়রা এগিয়ে আসলে তাদের মৃত্যুর হুমকি দেয়। এ সময় দোকানে থাকা ৩৮ হাজার টাকা ছিনিয়ে নিয়ে যায় মাদক কারবারিরা।

এ বিষয়ে ভুক্তভোগী শওকত আলম (৩২) বলেন, অভিযুক্তরা এলাকার চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী। অল্প সময়ের মধ্যে তারা অনেক টাকার মালিক হয়েছে। এলাকার লোকজন তাদের ভয়ে মুখ খুলছে না। তাই অভিযুক্তদের দ্রুত গ্রেফতার করে সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত করতে প্রশাসনের কাছে দাবি করেন তিনি।

এ বিষয়ে কুতুবদিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ ওমর হায়দার বলেন, এখনো কেউ অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে তদন্ত পূর্বক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।