আব্দুস সালাম,টেকনাফ:
কক্সবাজারের টেকনাফে সংঘবদ্ধ মানব পাচারকারীদলের আস্তানায় হানা দিয়ে মালয়েশিয়ায় পাচারের উদ্দেশ্যে নিয়ে আসা ১৫ বাংলাদেশীকে যৌথভাবে উদ্ধার করেছে বিজিবি ও পুলিশ।

মঙ্গলবার (২০ সেপ্টেম্বর) রাতে টেকনাফ ২ বিজিবি ব্যাটালিয়ন কর্তৃক পরিচালিত অভিযানে সংঘবদ্ধ মানব পাচারকারীদলের আস্তানায় হানা দিয়ে মালয়েশিয়া পাচারের উদ্দেশ্যে নিয়ে আসা ১৫ বাংলাদেশীকে উদ্ধার করা হয়।

টেকনাফ ২বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লেঃ কর্ণেল শেখ খালিদ মোহাম্মদ ইফতেখার গণমাধ্যমকে এসব তথ্য নিশ্চিত করেন।
তিনি জানান,নিজস্ব গোয়েন্দা সংবাদের ভিত্তিতে জানা যায় যে,টেকনাফ পৌরসভার নাইট্যংপাড়া মৃত নজির আহমেদের ছেলে জনৈক জামাল হোসেন (৫৫) মোবাইল নম্বর- ০১৯৩৮-৫৫৪০৯৪ এর বাড়িতে মালয়েশিয়া পাচারের উদ্দেশ্যে ১৫ জন বাংলাদেশীকে নিয়ে এসে জড়ো করে রাখা হয়েছে। এমন তথ্যের ভিত্তিতে রাত ৯ টার দিকে বিজিবি এবং পুলিশের যৌথ টহলদল কর্তৃক উক্ত বাড়িতে অভিযান পরিচালনা করা হয়। উক্ত তল্লাশী অভিযানকালে জনৈক জামাল হোসেনের বাড়ী থেকে মালয়েশিয়ায় গমনেচ্ছুক উক্ত ১৫ জন বাংলাদেশী নাগরিককে উদ্ধার করা হয়।
উল্লেখ্য, অভিযান পরিচালনার সময় মানব পাচারকারী (জনৈক জামাল হোসেন) পলাতক থাকায় তাকে তাৎক্ষণিক গ্রেপ্তার করা সম্ভব হয়নি। এছাড়াও উদ্ধারকৃত মালয়েশিয়া গমনেচ্ছুক বাংলাদেশীদের জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় যে, জনৈক জামাল হোসেন (মানবপাচারকারী) তার সাথে টেকনাফ পৌরসভার নাইট্যংপাড়া এলাকার মৃত সৈয়দ হোসেনের ছেলে
মোঃ ইউসুফ প্রকাশ আঙ্গুরী (৩০), একই এলাকার সৈয়দুল ইসলামের কবির হোসেন (২৫), নজির আহমেদের ছেলে মোঃ ইলিয়াস (৩০) এবং হোসেন আহমেদের ছেলে ইব্রাহিম (৪০) সহযোগী হিসাবে জড়িত রয়েছে। উক্ত মানব পাচারকারী ও তার সহযোগীদের পুলিশ কর্তৃক গ্রেফতারের প্রক্রিয়া চলমান রয়েছে।

তিনি আরো জানান,উদ্ধার ১৫ জন মালয়েশিয়ায় গমনোচ্ছুক বাংলাদেশীদের পরবর্তী আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য টেকনাফ থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।