সাধারণ সম্পাদক পদপ্রার্থী হচ্ছেন লায়ন আলমগীর

মুহাম্মদ মনজুর আলম.চকরিয়া:

নানা জল্পনা কল্পনার অবসান ঘটিয়ে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে বহুল প্রতিক্ষিত চকরিয়া পৌরসভা আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলন ও কাউন্সিল ২০২২। আগামী ৪ সেপ্টেম্বর রবিবার চকরিয়া পৌরসভার পুকপুকুরিয়া ৯নং ওয়ার্ডস্থ এটিএম পার্কে উপজেলা, জেলা ও কেন্দ্রীয় নেতাদের উপস্থিতিতে এ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে বলে আশা করছেন তৃণমূলের নেতা কর্মীরা। এ উপলক্ষে পৌরশহরের অলিগলিতে প্রার্থীদের বর্ণিল ব্যানার পোস্টারে ছেয়ে গেছে। সব জায়গায় যেন আনন্দ। সম্মেলনকে ঘিরে তৃণমূূলের দলীয় নেতাকর্মীদের মাঝে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা সৃষ্টি হয়েছে ।

কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগ ইতোমধ্যে চকরিয়া পৌরসভা আওয়ামী লীগের সম্মেলনের দিনক্ষণ ঘোষণা করেছেন। এরই অংশ হিসেবে চকরিয়া পৌরসভা আওয়ামী লীগের অধীন ৯টি ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের কাউন্সিলর তালিকাও তৈরি করে জেলা কমিটির কাছে প্রেরণ করা হয়েছে।

গত ২৪ অগাস্ট চকরিয়া পৌরসভা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় কক্সবাজার জেলা ও চকরিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র নেতৃবৃন্দের উপস্থিতিতে চকরিয়া পৌরসভা আওয়ামী লীগের কাউন্সিলর তালিকা চুড়ান্ত ভাবে অনুমোদন করা হয়।

জানা গেছে, চকরিয়া পৌরসভা আওয়ামী লীগের সম্মেলন ঘিরে ইতোমধ্যে সভাপতি ও সাধারন সম্পাদক পদে একাধিক প্রার্থী সরব হয়ে উঠেছেন। অবশ্য আগে থেকে সম্ভাব্য আওয়ামী লীগ নেতারা প্রার্থীতা ঘোষণা করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে নানাভাবে সভাপতি ও সাধারন সম্পাদক পদে ভোট করতে ইচ্ছা প্রকাশ করে দলের কাউন্সিলর, নেতাকর্মী ও শুভানুধ্যায়ী সবার কাছে দোয়া কামনা করছেন।

তৃণমূলের নেতা-কর্মীদের সঙ্গে কথা বলে জানাযায়, পৌরসভা আওয়ামীলীগের সভাপতি-সম্পাদক পদে একাধিক নেতার নাম উঠে এসেছে। সভাপতি পদে আবারো প্রতিদন্ধিতা করবেন বর্তমান সভাপতি জাহেদুল ইসলাম লিটু, চকরিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্না সম্পাদক ও চকরিয়া পৌরসভার মেয়র আলমগীর চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক পদে বর্তমান সাধারণ সম্পাদক আতিক উদ্দীন চৌধুরী, পৌরসভা আওয়ামীলীগের সদস্য লায়ন আলমগীর চৌধুরী, পৌর আওয়ামীলীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক ও চকরিয়া পৌসভার ৮নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. মুজিবুল হক। এ ছাড়াও সাধারণ সম্পাদকের দৌড়ে মোজাফফর হোসেন পল্টু ও এডভোকেট ফয়জুল কবিরের নামও শোনা যাচ্ছে ।

এদিকে বর্তমান পৌরসভা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও পূণরায় সভাপতি পদপ্রার্থী জাহেদুল ইসলাম লিটু বলেন, আগামী ৪ সেপ্টেম্বর চকরিয়া পৌর আওয়ামীলীগের সম্মেলন ও কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হবে, এ উপলক্ষে কেন্দ্রীয় ও জেলা আওয়ামীলীগ নেতাদের সাথে দফায় দফায় আলোচনা হচ্ছে, নেতারা ভাল পরামর্শ দিচ্ছেন। তৃণমূলের কর্মীদের সাথে নিয়ে কাউন্সিলর লিষ্ট প্রস্তুত করা হয়েছে । তৃণমূল নেতা-কর্মীদের দাবীর পরিপেক্ষিতে আমি আবারো সভাপতি পদপ্রার্থী হয়েছি। আগামীর চকরিয়া পৌর আওয়ামীলীগ হবে একটি শক্তিশালী সংগঠন তাই কাউন্সিলরবৃন্দরা আবারো আমাকে সভাপতি নির্বাচিত করবেন বলে আশাকরি ।

অপরদিকে সভাপতি পদপ্রার্থী চকরিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক ও পৌর মেয়র আলমগীর চৌধুরী বলেন, সভাপতি নির্বাচিত হলে পরিকল্পনার মাধ্যমে পৌর আওয়ামীলীগকে সুসংগঠিতকরে একটি শক্তিশালী সংগঠনে রূপান্তর করা হবে।

পৌরসভা আওয়ামীলীগের সদস্য ও এবার সাধারণ সম্পাদক পদপ্রার্থী লায়ন আলমগীর চৌধুরী বলেন, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ একটি সর্ববৃহৎ রাজনৈতিক দল তাই নেতৃত্বের প্রতিযোগিতা সবসময় থাকবে। আগামী ৪ সেপ্টেম্বর রবিবার পৌরসভা আওয়ামীলীগের নেতাকর্মী ও কাউন্সিলরদের অংশগ্রহনের মধ্যদিয়ে যথাসময়ে সম্মেলন উৎসব মূখর পরিবেশে অনুষ্ঠিত হবে বলে আশা করছি। তিনি বলেন, আমি ছাত্র জীবনথেকে জাতির জনকের আদর্শ বুকে ধারন করে আজ পর্যন্ত রাজপথে তৃণমূলের নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে লড়াই সংগ্রাম করেছি বর্তমানেও করে যাচ্ছি । জাতির জনকের স্বপ্ন এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার উন্নয়ন বাস্তবায়নে সারা জীবন পৌর আওয়ামী লীগের প্রতিটা নেতা-কর্মীর পাশে ছিলাম, আছি এবং আগামীতেও থাকব । আমার বিশ্বাস চকরিয়া পৌরসভা আওয়ামীলীগের সম্মানিত কাউন্সিলর ও ডেলিগেট ভাইয়েরা আমাকেই সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত করবেন। কারন আমি রাজপথের রাজনৈতিক সকল লড়াই সংগ্রামে প্রত্যাকটা মিছিল,মিটিং,সভা-সমাবেশে অগ্রভাগে ছিলাম যা তৃনমূলের নেতাকর্মীরা ও সন্মানিত কাউন্সিলরবৃন্দরা দেখেছেন। তাই আশাকরি কাউন্সিলরবৃন্দরা সঠিক সিন্ধান্ত নিয়ে আমাকে সাধারণ সম্পাদক পদে নির্বাচিত করবেন বলে আশাকরছি। আগামীতে চকরিয়া-পেকুয়া(কক্সবাজার)১ আসনের সংসদ সদস্য জননেতা আলহাজ¦ জাফর আলমের দিকনির্দেশনায় পৌর আওয়ামীলীগ পরিচালিত হবে বলেও জানান তিনি।

চকরিয়া পৌর আওয়ামীলীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আরিফ মঈন উদ্দীন রাসেল বলেন, ত্রিবার্ষিক সম্মেলনে কাউন্সিলর’রা একটি যোগ্য নেতৃত্ব তুলে আনবে। যারা চকরিয়ার গুরুত্বপূর্ণ পৌরশহরকে সবসময় নিয়ন্ত্রণে রাখতে পারবে ।