নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
কক্সবাজার শহরের বার্মিজ মার্কেটস্থ মুনতাহা ফ্যাশনের মালামাল ও প্রয়োজনীয় সরঞ্জাম পথে, ড্রেনে ফেলে দিয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। মার্কেটের মালিকানা নিয়ে ভাইদের মধ্যে বিরোধের সূত্র ধরে এমন ঘটনায় দোকানদারের ২০ লক্ষাধিক টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে জানা গেছে।

বিনা নোটিশে দোকানের তালা ভেঙে মালিকের অনুপস্থিতিতে রবিবার সকালে মালামাল সরিয়ে ফেলার খবরে স্থানীয় ব্যবসায়ীরা ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছে। ক্ষতিপূরণসহ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানিয়েছে দোকান মালিক সাইফুল ইসলাম।

এদিকে, বিনা নোটিশে মালামাল সরিয়ে ফেলে ক্ষয়ক্ষতির প্রতিবাদ জানিয়ে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে স্থানীয় ব্যবসায়ীরা।

রবিবার (২৮ আগস্ট) বিকালে আলমাছ কমপ্লেক্সের সামনে অনুষ্ঠিত বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তব্য দেন, কক্সবাজার দোকান মালিক সমিতি ফেডারেশনের সাবেক সভাপতি আলহাজ্ব ফরিদ আহাম্মদ চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক আবুল হাশেম, সাবেক যুগ্ম-আহ্বায়ক মোস্তফা কন্টাক্টর, বৃহত্তর বার্মিজ মার্কেট ব্যবসায়ী কল্যাণ সমবায় সমিতি লিমিটেডের কার্যকরী সভাপতি মুছা কলিম উল্লাহ, সহ-সভাপতি মুজিবুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক মহিউদ্দিন খোকন, সাংগঠনিক সম্পাদক শাহ আলম,

বক্তারা বলেন, বৈধ চুক্তিনামা ও নিয়মিত ভাড়া পরিশোধের পরও দোকানদারকে উচ্ছেদের চেষ্টা ঘৃণিত ও নিন্দনীয় কাজ। বিনা নোটিশে একজন ব্যবসায়ীর সাথে এমন আচরণ বেআইনি। মার্কেট মালিকপক্ষের তিন ভাইয়ের মালিকানা বিরোধের শিকার ব্যবসায়ী কেন হবে?

জানা গেছে, সাতকানিয়ার সামিয়ার পাড়ার বাসিন্দা মৃত অলী মিয়ার ছেলে মৃত হাজী আহম্মদ হোছেনের সঙ্গে ২০০৬ সালের ১৭ মার্চ আলমাছ কমপ্লেক্সের মালিক মৃত গোলাম কাদেরের তিন ছেলে জালাল আহমদ, আলী আহমদ ও হাবিব উল্লাহর সাথে দোকান গৃহ ভাড়ানামা চুক্তি হয়। তখন থেকে দোকানের ভাড়া নিয়ে আসছে হাবিব উল্লাহ। ইতোমধ্যে দোকানের মালিকানা নিয়ে ভাইদের মধ্যে বিরোধ দেখা দিলে আদালতে মামলা হয়। যথারীতি আদালতে ভাড়া পরিশোধ করে আসছে দোকানদার সাইফুল ইসলাম। মামলাটি নিষ্পত্তি হয় নি। আদালতে মামলা চলমান অবস্থায় উচ্ছেদের প্রচেষ্টা সম্পূর্ণ বেআইনি অনধিকার চর্চা বলে জানিয়েছেন ব্যবসায়ীরা। সুষ্ঠু তদন্তপূর্বক ঘটনার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার দাবি ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীসহ সর্বমহলের।