শেফাইল উদ্দিন :

কক্সবাজারের ঈদগাঁওতে ডাক্তারের ভুল চিকিৎসায় এক নবজাতকের মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। সংগঠিত ঘটনায় নবজাতকের স্বজনদের মাঝে তীব্র উত্তেজনা বিরাজ করছে।
শুক্রবার (১২ আগস্ট ) ঈদগাহ মডেল হাসপাতাল এন্ড ডায়াবেটিস কেয়ার সেন্টারে এ ঘটনা ঘটে।
। জানা যায়, ইসলামাবাদ ইউনিয়নের পশ্চিম ইউছুপেরখীল এলাকার দুবাই প্রবাসী তাজুল ইসলাম মিন্টুর স্ত্রী পারেচা আক্তার লাকির (৩০) তীব্র প্রসব বেদনা উঠলে তাকে সকাল সাড়ে দশটার দিকে ওই হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। হাসপাতালের গাইনি ও প্রসূতি বিভাগের চিকিৎসক, আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডাঃ গাজী সাঈদা ইয়াছমিন পলির তত্ত্বাবধানে তার চিকিৎসা কার্যক্রম চলে। একপর্যায়ে মহিলাকে ডেলিভারি ওয়ার্ডে নিয়ে গিয়ে কর্তব্যরত চিকিৎসক টেনে হেঁচড়ে নব গুরুতর আহত করে বাচ্চা প্রসব করে। রোগীর স্বজনরা জানান, কর্তব্যরত মহিলা ডাঃ টেনে হেঁচড়ে বাচ্চা প্রসব করালে নবজাতকের শরীরে বিভিন্ন স্থানে জখম প্রাপ্ত হয়। ভূমিষ্ঠের আধঘন্টা পর ছেলে শিশুটি মারা যায়। অসুস্থ মাকে চিকিৎসা দেয়া হয়। প্রসূতি মহিলাটি চৌফলদণ্ডী ইউনিয়নের খামার পাড়ার ব্যবসায়ী নুরুল আজিমের মেয়ে। মৃত্যুর খবর উপস্থিত স্বজনদের মাঝে পৌঁছালে তাদের মাঝে ক্ষোভ বিরাজ করে।
নবজাতকের আত্মীয় শিক্ষক মাইনুদ্দিন জানান, প্রসূতি মহিলাটি বারবার সিজার করার কথা বললেও কর্মরত ডাক্তার তা কর্ণপাত করেননি।
বাচ্চা প্রসবের সময় টেনে হেঁচড়ে দ্রুত বের করতে চাওয়ায় নবজাতকটিকে অকালে মৃত্যুবরণ করতে হলো।ঘটনার পর পর কর্মরত মহিলা ডাক্তার নিজ চেম্বার ত্যাগ করে চলে যান।খবর পেয়ে হাসপাতালের উদ্যোক্তা ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডাঃ মোঃ ইউছুপ আলী উপস্থিত স্বজনদের কাছে অনাকাঙ্ক্ষিত এ ঘটনার জন্য দুঃখ প্রকাশ করেন।
উল্লেখ্য, ইতোপূর্বে ওই হাসপাতালে এ ধরনের একাধিক ঘটনার অভিযোগ উঠেছিল। ভুক্তভোগী পরিবার এ ঘটনায় সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।