চট্টগ্রাম প্রতিনিধিঃ

দীর্ঘ ১৫ বছর আগে সীতাকুণ্ড থানার একটি শিপ ব্রেকিং ইয়াডে চুরি করতে গিয়ে দুই দারোয়ানকে পিটিয়ে হত্যা করেন ৪ জন। এ মামলায় অভিযুক্ত ৪ আসামীকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

মঙ্গলবার (৩১ মে) দুপুরে চট্টগ্রামের পঞ্চম অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ অশোক কুমার দত্তের আদালত এই রায় দেন। এ সময় চার আসামি আদালতে উপস্থিত ছিলেন।

যাবজ্জীবন কারাদণ্ড প্রাপ্ত আসামিরা হলেন, সীতাকুণ্ড উপজেলার বার আউলিয়া এলাকার ফারুক মিয়া, মো. সেকান্দর, আবুল কালাম আজাদ ও বাদশা আলম।

আদালত সূত্রে জানা যায়, ২০০৮ সালের ২০ এপ্রিল সীতাকুণ্ড থানায় শিপ ব্রেকিং চুরি করতে গিয়ে প্রতিষ্ঠানের দারোয়ান মোহাম্মদ হারুন ও জাহেদুল আলমকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়।

এ ঘটনায় হারুনের বাবা মোহাম্মদ আলী বাদি হয়ে সীতাকুণ্ড থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ২০০৮ সালের ১৮ সেপ্টেম্বর চার জনকে আসামি করে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করে।

২০১০ সালের ১৯ সেপ্টেম্বর আসামিদের বিরুদ্ধে দণ্ডবিধির ৩০২ ধারায় অভিযোগ গঠন করে বিচার শুরুর আদেশ দেন আদালত।

আদালত ১৭ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ করেছেন রাষ্ট্রপক্ষের কৌঁসুলি লোকমান হোসেন চৌধুরী বলেন, সীতাকুণ্ড থানায় শিপ ব্রেকিং ইয়াডের দুই দারওয়ানকে পিটিয়ে হত্যা মামলায় ৪ আসামিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও প্রত্যেককে ২০ হাজার টাকা জরিমানা ও অনাদায়ে আরও ৪ মাসের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। রায়ের সময় আদালতে চার আসামি উপস্থিত ছিলেন। পরে তাদের কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।