সংবাদ বিজ্ঞপ্তি:

কক্সবাজার জেলা সহ বর্তমানে দেশের অন্যতম সমস্যা রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন, বিশ্বের দীর্ঘতম সমুদ্র সৈকতে অবৈধ ঝুপড়ি উচ্ছেদ এবং জেলার প্রধান নদী বাঁকখালী দখলমুক্ত করে উচ্চ আদালতের রায় বাস্তবায়ন করার দাবীতে লাগাতার আন্দোলনের ডাক দিয়েছে জেলার বৃহৎ তিন সামাজিক সংগঠন আমরা কক্সবাজারবাসী, নাগরিক ফোরাম এবং কক্সবাজার সোসাইটি।
আমরা কক্সবাজারবাসী সংগঠনের জেলা সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ আলীর সভাপতিত্বে এক যৌথ সভায় লাগাতার আন্দোলনের ডাক দেওয়া হয়। গতকাল রবিবার(২৯ মে) বিকাল ৫ টায় শহরের একটি অভিজাত হোটেলের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত হয়। সভায় লাগাতার আন্দোলনের অংশ হিসেবে আগামী বৃহস্পতিবার জেলা প্রশাসকের সাথে তিন সংগঠনের নেতৃবৃন্দের বৈঠক, শরনার্থী, ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার, ইউএনএইচসিআর, আইএমও সহ সংশ্লিষ্ট সংস্থার বরাবরে স্মারকলিপি প্রদান এবং মানববন্ধন, প্রতিবাদ সমাবেশ, জাতীয় প্রেসক্লাবে মানববন্ধন, মিয়ানমার দূতাবাস ঘেরাও করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। যদি দ্রুত রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা না-হয় তাহলে লাগাতার হরতালের ডাক দেওয়া হবে বলেও হুশিয়ারি উচ্চারণ করেন নেতৃবৃন্দরা।

বক্তারা আরও বলেন, অবলম্বে সৈকতে ঝুপড়ি সহ অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ বাঁকখালী নদী দখলমুক্ত এবং পাহাড় খেকোদের গ্রেফতার করা না হলে প্রয়োজনে উচ্চ আদালতে যেতে বাধ্য হবো।

বক্তারা উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেন, জেলার স্বনামধন্য সংগঠন বাংলাদেশ পরিবেশ আইনবিদ সমিতি কক্সবাজারের পরিবেশ রক্ষায় দৃষ্টান্তমূলক ভূমিকা রাখলেও এ সংগঠনের নাম ভাঙ্গিয়ে চিহ্নিত এক চাঁদাবাজ যুবক বিভিন্ন মানুষকে হয়রানি, ব্যাপক চাঁদাবাজি এবং পরিবেশ খেকোদের কাছ থেকে অনৈতিক সুবিধা আদায় করে তাদের রাতারাতি পরিবেশবাদী বানাচ্ছেন। চিহ্নিত এ অপরাধী নিজেকে পরিবেশবাদী পরিচয় দিয়ে পাহাড়, বাঁকখালী এবং সমুদ্র সৈকত দখল সহ পরিবেশ ধ্বংস করছে দীর্ঘদিন ধরে।

এতে পরিবেশ খেকোরা আরও বেপরোয়া হয়ে উঠছে বলেও দাবি করেন বক্তারা। চিহ্নিত এ চাঁদাবাজকে দ্রুত আইনের আওতায় আনার দাবি জানিয়েছেন নেতৃবৃন্দরা।
পাশাপাশি এই অপরাধীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে বেলা’র প্রধান নির্বাহীর প্রতিও আহ্বান জানান তিন সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন আমরা কক্সবাজারবাসী সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক নাজিম উদ্দিন।

এতে গুরুত্বপূর্ণ বক্তব্য রাখেন, কক্সবাজার পৌরসভার সাবেক সফল চেয়ারম্যান নুরুল আবছার, কক্সবাজার নাগরিক ফোরাম এর সভাপতি আ.ন.ম হেলাল উদ্দিন, কক্সবাজার সোসাইটির সভাপতি কমরেড গিয়াস উদ্দিন, নাগরিক ফোরামের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক আনোয়ারুল হল, আমরা কক্সবাজারবাসী’র সহ সভাপতি সমীর পাল, মেহেরুজ্জামান ও আনিসুল হক চৌধুরী, দৈনিক বাঁকখালীর সম্পাদক, আমরা কক্সবাজারবাসী সংগঠনের সহ সভাপতি কামাল উদ্দিন রহমান পিয়ারু, সাংবাদিক শামসুল হক শারেক, কক্সবাজার সোসাইটির সহ সভাপতি অ্যাডভোকেট আব্দুর রহিম, ফাতেমা আনকিস ডেইজি, অ্যাডভোকেট সাকী এ কাউসার, নুর মোহাম্মদ সিকদার, মাহবুবুর রহমান মাহাবুব, সাংবাদিক এম আর খোকন, সাংবাদিক আমানুল হক বাবুল, সাংবাদিক ফরহাদ ইকবাল, আমরা কক্সবাজারবাসী সংগঠনের জেলা শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক সাংবাদিক মহসীন শেখ, সাংবাদিক শহিদুল্লাহ মেম্বার, কক্সবাজার সোসাইটির সাংগঠনিক সম্পাদক আরিফুর রহিম, মোহাম্মদ ইলিয়াস মিয়া, এমদাদুল হক ভুট্টো, আমরা কক্সবাজারবাসী সংগঠনের শহর শাখার সভাপতি সফিনা আজিম এবং সাধারণ সম্পাদক কামাল উদ্দিন।

অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন, আমরা কক্সবাজারবাসী সংগঠনের জেলা শাখার যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মুজিবুল হক।

এতে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, বিশিষ্ট লেখক বদরুল আলম বাদল, জাহিদুল ইসলাম রিটন, সাংবাদিক আমিনুল হক, সাংবাদিক রাশেদুল মজিদ, সাংবাদিক যথাক্রমে- শাহ আলম, এস্তে ফারুক, শাহ নিয়াজ, সাইফুল ইসলাম, এহসান আল কুতুবী, আনোয়ার হাসান চৌধুরী। মা টিনটিন রাখাইন, নাজমা সুলতানা রুমা, মনোয়ারা মনি, জান্নাতুল আরিশা উর্মি, মোস্তফা কামাল রিফাত, ইসমত জাহান, নাজির হোসাইন, মোহাম্মদ ফারুক, এসএম বাবর, কল্লোল চৌধুরী, মাস্টার সালেহ আহমদ, এ কে এম রিদুয়ানুল করিম, মোহাম্মদ মামুন ও আব্দুল মালেক প্রমূখ।