প্রেস বিজ্ঞপ্তি:

আজ বিশ্ব রেড ক্রস ও রেড ক্রিসেন্ট দিবস। ১৮২৮ সালের এই দিনে রেড ক্রস-এর প্রতিষ্ঠাতা জিন হেনরি ডুনান্ট সুইজারল্যান্ডের জেনেভা শহওে জন্মগ্রহণ করেন। এই মহান ব্যক্তিকে শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করার জন্য প্রতিবছর তার জন্মদিনটিকে বিশ্ব রেড ক্রস ও রেড ক্রিসেন্ট দিবস হিসেবে সারা বিশ্বে উদযাপন করা হয়। বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি, কক্সবাজার ইউনিটের পক্ষ হতে যথাযোগ্য মর্যাদা ও গুরুত্ব সহকারে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ৮মে বিশ্ব রেড ক্রস ও রেড ক্রিসেন্ট দিবস উদযাপন করা হয়।

এ বছর দিবসটির প্রতিপাদ্য বিষয় হচ্ছে #BeHumanKIND অর্থাৎ শব্দটির সাধারণ অর্থ ‘দয়া’ হলেও রেড ক্রস/ক্রিসেন্ট সহানুভূতি শব্দ ব্যবহারেই পছন্দ করে। কারণ প্রতিষ্ঠানটির মূলনীতি-বিশেষত মানবতার মর্মকতা। আন্তর্জাতিক মানবিক আচরণবিধির বার্তা হচ্ছে সাহায্য সহযোগিতা পাওয়া দুর্গত/বিপদাপন্ন মানুষের অধিকার; কোনভাবে তা দয়া প্রদর্শন নয়। বিপদাপন্ন মানুষের পাশে রেড ক্রস/ রেড ক্রিসেন্ট এর স্বেচ্ছাসেবক ও কর্মীরা সহানুভূতি দিয়েই সহযোগিতা করে যাচ্ছে।

এই দিবসকে সামনে রেখে দিনব্যাপী নানা কার্যক্রম আয়োজন করে থাকে বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি কক্সবাজার ইউনিট সহ ইউনিটের আওতাধীন ৯টি উপজেলায় দিবসটি যথাযথ মর্যদায় পালন করেন। দিবসের প্রথমভাগে কক্সবাজার রেড ক্রিসেন্ট ইউনিট সেক্রেটারীর নেতৃত্বে যুব স্বেচ্ছাসেবক, ইউনিট কার্যনির্বাহী সদস্য ও বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির কক্সবাজার জেলায় কর্মরত বিভিন্ন কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের উপস্থিতিতে সকাল ৯.০০ ঘটিকায় ইউনিট অফিস প্রাঙ্গনে আনুষ্ঠানিকভাবে জাতীয় পতাকা ও রেড ক্রিসেন্ট পতাকা উত্তোলন করা হয়। অতঃপর সকাল ৯.৩০ টায় বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রার মধ্য দিয়ে শহরের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে। সকাল ১১.০০ ঘটিকায় ‍যুব সদস্য মোহাম্মদ আবদুল্লাহ্ সঞ্চালনায় ইউনিট সেক্রেটারীর সভাপতিত্বে দিবসটির গুরুত্ব ও তাৎপর্যের উপর ভিত্তি করে ইউনিট চত্বরে আলোচনাসভা ও কেক কাটা হয়।

উক্ত আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির পরিচালক ও পপুলেশন মুভমেন্ট অপারেশন এর হেড অব অপারেশন জনাব এম.এ. হালিম, সোসাইটির উপ-পরিচালক জনাব আকরাম আলী খান রানা, আইএফআরসি’র হেড অব সাব ডেলিগেট মিঃ হরিচন্দন ঋষিকেশ, ইউনিট কার্যনির্বাহী সদস্য জনাব শহীদুল আলম বাহাদুর, মিসেস হামিদা তাহের, ইউনিট লেভেল অফিসার জনাব আজরু উদ্দিন সাফদার। এছাড়াও যুব স্বেচ্ছাসেবকদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন মেহেরুন জান্নাত নিসা, আবু হানিফ।

আলোচনা সভায় উপস্থিত সকল বক্তাবৃন্দ মূলত রেড ক্রস রেড ক্রিসেন্ট আন্দোলনের ০৭টি মূলনীতির আলোকে কিভাবে বিপদাপন্ন/দুর্গত মানুষদের চাহিদামাফিক সেবা নিশ্চিত করা যায়, সোসাইটির দক্ষ ও প্রশিক্ষিত যুব স্বেচ্ছাসেবকগণ নিজেদের মানবিকতার জায়গাটা কিভাবে আরো প্রসার করে অসহায়/বিপদাপন্ন মানুষের পাশে দাঁড়াতে পারে, কর্মীরা কিভাবে সোসাইটির দীর্ঘদিনের সুনাম ধরে রাখার লক্ষ্যে কাজ করতে পারে সামগ্রিক বিষয় উপস্থাপন ও আলোচনা করেন। দিবসের শেষাহ্নে বিকাল ২.০০ ঘটিকা হতে কক্সবাজার রেড ক্রিসেন্ট ইউনিটের স্বেচ্ছাসেবকদের উদ্যোগে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে দরিদ্র অসহায় রোগীদের জন্য স্বেচ্ছায় রক্তদান কর্মসূচির আয়োজন করা হয়। পরিশেষে কক্সবাজার রেড ক্রিসেন্ট ইউনিট সেক্রেটারী জনাব খোরশেদ আলম এর সার্বিক তত্ত্বাবধানে দিনব্যাপী এই বিশ্ব রেড ক্রস ও রেড ক্রিসেন্ট দিবস উদযাপন কার্যক্রমের সমাপ্তি ঘোষণা করা হয় এবং সবাই মিলে একত্রে এই পৃথিবীকে আরও সুরক্ষিত এবং শান্তিপূর্ণ জায়গা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করার প্রতিশুতি ও চেষ্টায় অপ্রতিরোধ্য হিসেবে কাজ করার জন্য ইউনিট সেক্রেটারী ইউনিটের সকল যুব স্বেচ্ছাসেবক ও কর্মকর্তাদের প্রতি আহবান জানান।

 
  
%d bloggers like this: