মোঃ আবছার কবির আকাশ :

কক্সবাজারের টেকনাফ লাতুরী খোলা এলাকায় মসজিদের ইমামকে অস্ত্র ফাঁসানো চেষ্টাকালে র‌্যাব সদস্যরা ২ যুবকে আটক করে।

শুক্রবার (৬ মে) দুপুরে বিষয়টি র‌্যাব এক প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে নিশ্চিত করেন।

র‌্যাব-১৫, হোয়াইক্যং ক্যাম্প, টেকনাফ, কক্সবাজার এর একটি আভিযানিক দল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে কক্সবাজার জেলার টেকনাফ থানাধীন হোয়াইক্যং ইউপিস্থ লাতুরী খোলা পশ্চিম পাড়া জামে মসজিদের সামনে অভিযান পরিচালনা করে স্থানীয় লাতুরীখোলার ইলিয়াস এর ছেলে আব্দুল মজিদ (৩৭) হাবিবুর এর ছেলে জামাল হোসেন (২৭), কে দেশীয় অস্ত্র ০১ (এক) টি দেশীয় তৈরী ওয়ান শ্যুটারগান এবং একটি বড় রাম দা সহ গ্রেফতার করে। এসময় র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে স্থানীয় হানিফের ছেলে জাফর ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায়। এ সংক্রান্তে র‌্যাব বাদী হয়ে টেকনাফ থানায় নিয়মিত অস্ত্র মামলা দায়ের করেন।

আটক যুবকদ্বয়কে জিজ্ঞাসাবাদে তারা স্বীকার করে যে, তারা লাতুরীখোলা পশ্চিমপাড়া জামে মসজিদের বর্তমান পরিচালনা কমিটির লোক। বর্তমান মসজিদ কমিটির সহিত বর্তমান মসজিদের ইমাম স্থানীয় নাজির আহম্মদের ছেলে মোহাম্মদ আলীর সহিত বিরোধ চলতেছে। অবৈধ অস্ত্রগুলো ইমামের আবাসস্থলে রেখে ইমামকে অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী আখ্যায়িত করার উদ্দেশ্যে কমিটির সদস্যরা জব্দকৃত অস্ত্রগুলো সংগ্রহ করে আটক যুবকদের হাতে তুলে দেয় মর্মে জানা যায়। স্থানীয়ভাবে অনুসন্ধানেও ঘটনার সত্যতা পরিলক্ষিত হয়।

এবিষয়ে বর্তমান মসজিদের ইমাম স্থানীয় নাজির আহম্মদের ছেলে মোহাম্মদ আলীকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে তিনি জানান যে, বর্তমান মসজিদ কমিটি এর আগেও আমাকে সামাজিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন করার উদ্দেশ্যে আরো বেশ কয়েকবার আমাকে প্রতারক, অস্ত্রধারী, জঙ্গী ইত্যাদি রুপে আখ্যায়িত করার চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়েছে। সর্বশেষ আমাকে অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী বানানোর চেষ্টা করে। আমি র‌্যাব-১৫ এর হোয়াইক্যং ক্যাম্পকে ধন্যবাদ জানাই।

এবিষয়ে র‌্যাব-১৫, হোয়াইক্যং ক্যাম্প, টেকনাফ, কক্সবাজার এর কোম্পানী কমান্ডার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হাফিজুর রহমান জানান যে, এ ধরণের যে কোন সামাজিক চক্রান্ত সংক্রান্তে র‌্যাব সজাগ দৃষ্টি রাখবে এবং তা কঠোর হাতে দমন করা হবে।

 
  
%d bloggers like this: