মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী :

কক্সবাজার শহরের কেন্দ্রীয় ঈদগাহ ময়দানের সার্বিক উন্নয়নে ৪০ লক্ষ টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। সংসদ সদস্য হিসাবে কক্সবাজার জেলা পরিষদের মাধ্যমে এ অর্থ বরাদ্দ দেওয়া হয়।

কক্সবাজার-৩ (সদর-রামু-ঈদগাহ) আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব সাইমুম সরওয়ার কমল মঙ্গলবার ৩ মে সকালে কক্সবাজার কেন্দ্রীয় ঈদগাহ ময়দানে ঈদুল ফিতরের জামাত পূর্ববর্তী শুভেচ্ছা বক্তব্যে এ তথ্য প্রকাশ করেন।

এমপি সাইমুম সরওয়ার কমল আরো বলেন, আগেও তাঁর নিজস্ব কোটা থেকে প্রয়োজনীয় অর্থ বরাদ্দ দিয়ে কক্সবাজার কেন্দ্রীয় ঈদগাহ ময়দানের আংশিক উন্নয়ন করা হয়েছে। এ বছর বরাদ্দকৃত ৪০ লক্ষ টাকার উন্নয়ন কাজ শীঘ্রই শুরু হবে বলে জানান তিনি।

মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৮ টায় কক্সবাজার কেন্দ্রীয় ঈদগাহ ময়দানে ঈদের প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হয়। ঈদগাহে ছিল মানুষের উপচে পড়া ভিড়। এতে শহরের বিভিন্ন এলাকা থেকে ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা অংশ নেন।

কেন্দ্রীয় ঈদগাহ ময়দানে ঈদুল ফিতরের প্রধান জামাতে ইমামতি করেন কক্সবাজার কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের খতিব, বিশিষ্ট আলেমেদ্বীন মাওলানা মাহমুদুল হক। পরে দেশকে করোনা মুক্ত করতে ও সকলের মঙ্গল কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করা হয়।

কক্সবাজার পৌরসভার প্যানেল মেয়র-১ মাহবুবুর রহমানের সঞ্চালনায় ঈদগাহ ময়দানে নামাজের আগে মুসুল্লিদের উদ্দেশ্যে অন্যান্যের মধ্যে আরো শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন-কক্সবাজারের সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ মোহাম্মদ ঈসমাইল, জেলা প্রশাসক মো. মামুনুর রশিদ, পুলিশ সুপার মো. হাসানুজ্জামান পিপিএম, পৌরসভার মেয়র মুজিবুর রহমান।

শুভেচ্ছা বক্তব্যে দলাদলি, হানাহানি, লোভ, মোহ, হাঙামা, বিশৃঙ্খলা থেকে মুক্ত হয়ে সকলের মধ্যে যেন সম্প্রতির মূল্যবোধ জাগ্রত হয় সেই প্রত্যাশা করেন তারা।

টানা দুই বছর করোনার পর ভীতি ছাড়া উন্মুক্ত জায়গায় ঈদের নামাজ আদায় করতে পেরে বেশ খুশি মুসল্লিরা। মুসল্লিদের নিরাপত্তায় পুলিশের পাশাপাশি র‌্যাব সদস্যরাও নিয়োজিত ছিলেন ঈদগাহ ময়দানে। দীর্ঘদিন পর উন্মুক্ত জায়গায় নামাজ পড়তে পেরে ঈদগাহ ময়দান ছাড়িয়ে স্টেডিয়াম সড়কও কানায় কানায় পূর্ণ হয় মুসুল্লিদের ভীড়ে।

 
  
%d bloggers like this: