প্রেস বিজ্ঞপ্তি:

উৎসবমুখর পরিবেশে টেকনাফ উপজেলার ব্যতিক্রমধর্মী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হ্নীলা আল ফালাহ একাডেমির প্রাক্তন ছাত্র-ছাত্রীদের সংগঠন আপ্রাছাস এর সাধারণ নির্বাচন–২০২২ এবং ইফতার ও দোয়া মাহফিল সম্পন্ন হয়েছে। সাধারণ নির্বাচনে একাডেমির ১৭২ জন প্রাক্তন শিক্ষার্থী সরাসরি ভোট প্রদান করে তাদের পছন্দের প্রার্থী নির্বাচন করেছে। আয়োজনের দ্বিতীয় পর্বে একাডেমির সম্মানিত বর্তমান ও প্রাক্তন শিক্ষকমণ্ডলী, একাডেমি পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি ও অন্যান্য সদস্যবৃন্দ, হ্নীলা ও হোয়াইক্যং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানবৃন্দ এবং এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের উপস্থিতিতে প্রায় তিন শতাধিক প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে মনোমুগ্ধকর এই ইফতার মাহফিল ও দোয়া অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়।

উল্লেখ্য, আপ্রাছাস এর এই ব্যতিক্রমী সাধারণ নির্বাচন গণতন্ত্র চর্চার এক চমৎকার নতুন ধারার অবতারণা করেছে। একাডেমির প্রাক্তন ছাত্র, বাংলাদেশ বিচার বিভাগের সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট জনাব আবদুল্লাহ আল নোমানের নেতৃত্বাধীন গঠনতন্ত্র প্রণয়ন উপকমিটি কর্তৃক প্রণীত প্রণীত গঠনতন্ত্রের ভিত্তিতে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনার সাথে গত ৩০ এপ্রিল ২০২২ ইং (২৮ রমজান ১৩৪৩ হিজরি) একাডেমি মিলনায়তনে প্রত্যক্ষ ভোটে এ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। স্কুলের প্রাক্তন শিক্ষক জনাব মুসা কলিমুল্লাহর নেতৃত্বে ৩ সদস্য বিশিষ্ট একটি শক্তিশালী নির্বাচন কমিশন এ নির্বাচন পরিচালনা করে। সকাল ১১টা থেকে বিকাল ৩ টা পর্যন্ত চলা এ নির্বাচনে অপর দু’জন কমিশনার ছিলেন স্কুলের প্রাক্তন শিক্ষক নাফ মেরিট মাল্টিমিডিয়া স্কুলের প্রিন্সিপাল জনাব মমতাজুল ইসলাম মনু এবং কানজর পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষক জনাব সেলিম উদ্দিন।

৩ ধাপে অনুষ্ঠিত এ নির্বাচনের উল্লেখযোগ্য দিক হলো সাধারণ ভোটারদের প্রত্যক্ষ ভোটে ১১ সদস্য বিশিষ্ট (২ জন মনোনীত সদস্যসহ ১৩ জন) কার্যকরী পর্ষদ নির্বাচন ; যেখানে প্রত্যক্ষভাবে কোন প্রার্থী ছিল না; আবার পরোক্ষভাবে কার্যকরী পর্ষদ সদস্য হওয়ার যোগ্যতা সম্পন্ন ১৬৭ জন প্রার্থী ছিলো। ভোটাররা নির্দিষ্ট ব্যালট পেপারে উক্ত ১৬৭ জন প্রার্থী থেকে পছন্দের ২ জন নারী সদস্য ও ৭ জন পুরুষ সদস্যকে ভোট দেয়। এতে কার্যকরী পর্ষদ সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হয় নুরুল ইসলাম, ওমর ফারুক, ডাঃ আবু বকর আল মামুন, হারুনুর রশিদ, আলমগীর সালাম পুলক, সায়েম সিকদার, এডভোকেট আনিসুর রহমান, সাইফুল্লাহ মানছুর, মোহাম্মদ আজম পিংকেল, সেলিনা আকতার ও দিলরুবা খানম রুবা। পর্ষদে দু’জন মনোনীত সদস্য হিসেবে অন্তর্ভুক্ত হন প্রাক্তন সভাপতি মুহাম্মদ আমিনুল্লাহ সাইফ ও সাবেক সাধারণ সম্পাদক ফরিদ আলম। দ্বিতীয় ও চুড়ান্ত ধাপে ১১ জন নির্বাচিত কার্যকরী পর্ষদ সদস্যগণ নিজেদের মধ্যে প্রত্যক্ষ ভোটাভুটিতে সভাপতি পদে ওমর ফারুক, সাধারণ সম্পাদক পদে ডাঃ আবু বকর আল মামুন, কোষাধ্যক্ষ পদে এডভোকেট আনিসুর রহমান, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক পদে সাইফুল্লাহ মানছুর এবং দপ্তর সম্পাদক পদে সায়েম সিকদারকে নির্বাচিত করে।
নির্বাচন কমিশনের দক্ষ পরিচালনায় অত্যন্ত সুষ্ঠু ও অবাধ ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়, দেশ-বিদেশের বিভিন্ন প্রান্তে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে থাকা স্কুলের প্রাক্তন শিক্ষার্থীরা অনেকদিন পর একসাথে তাদের প্রিয় একাডেমিতে এসে অত্যন্ত উৎসব মুখর পরিবেশে ভোট দেয়।

নির্বাচনকে কেন্দ্র করে স্কুল প্রাঙ্গনে বন্ধু-বান্ধব ও অগ্রজ-অনুজদের এক মহামিলন ঘটে। প্রাক্তন শিক্ষার্থীরা ফিরে যাওয়ার প্রয়াস পায় স্কুলবেলার স্মৃতিমাখা দিনগুলোতে, মুহুর্মুহু ক্যামেরার ফ্ল্যাশ আর সেলফিতে মেতে তারা নতুন স্মৃতি সম্ভার গড়ার চেষ্টা করে।

আপ্রাছাস এর গণতান্ত্রিক চর্চার এই ব্যতিক্রমী ধারা ও চমৎকার ইফতার মাহফিল টেকনাফে বেশ আলোড়ন সৃষ্টি করেছে। ইফতার ও দোয়া মাহফিলের আমন্ত্রিত অতিথিবৃন্দ, একসাথে এত বিশাল সংখ্যক প্রাক্তন একাডেমিয়ানদের দেখে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেন এবং আপ্রাছাস এর নতুন নির্বাচিত কমিটির সাফল্য কামনা করে দোয়ায় অংশগ্রহণ করেন। পাশাপাশি তারা আশাবাদ ব্যক্ত করেন, আপ্রাছাস এর কার্যক্রম টেকনাফ উপজেলার ব্যতিক্রমধর্মী এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে আরো বেশি সমৃদ্ধির পথে নিয়ে যাবে।

 
  
%d bloggers like this: