প্রেস বিজ্ঞপ্তি:
আদর্শ কলম সৈনিকদের সমন্বিত প্লাটফর্ম রামু লেখক ফোরামের দেড় দশকের শুভ সন্ধিক্ষণে দুটি বিশেষ প্রকাশনার মোড়ক উন্মোচন এবং কবি ও গুণীজন সম্মাননা অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়েছে। জুমাবার ( ২৭ রমযান, ২৯ এপ্রিল) রামু “রামু লেখক ফোরামের দেড় দশক: প্রাপ্তি ও প্রত্যাশা” শীর্ষক আলোচনা সভা ও ইফতার মাহফিলের বিশেষ আকর্ষণ ছিলো এ কর্মসূচি।

রামু প্রবাসী কল্যাণ সংস্থা (মক্কা) এর রামু শাখা মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত প্রাণবন্ত এ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন, সংগঠনের সভাপতি হাফেজ মুহাম্মদ আবুল মঞ্জুর।

অনুষ্ঠানে সাহিত্য সাময়িকী পুষ্পকলি’র স্মারক ও ঈদ সংখ্যা এবং শিক্ষানবিস সদস্য, কিশোরী কবি ফাহিমা বিনতে হোসাইনের স্বরচিত কাব্যগ্রন্থ “নিখাদ আলো”র মোড়ক উন্মোচন করা হয়। সেই সাথে এ সংগঠন প্রতিষ্ঠার প্রাণপুরুষ, কক্সবাজার ইসলামী সাহিত্য ও গবেষণা পরিষদের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি মাওলানা আব্দুচ্ছালাম কুদছী রহ. এর প্রতি মরণোত্তর সম্মাননা স্মারক, কাব্যচর্চা ও সাহিত্যাঙ্গনে বিশেষ অবদানের স্বীকৃতিসরূপ সংগঠনের প্রবীণ উপদেষ্টা, স্বভাবকবি আলহাজ্ব কাজী মোহাম্মদ আলী এবং নিভৃতচারী কবি এম. সুলতান আহমদ মনিরীকে সম্মাননা স্মারক প্রদান করা হয়। মাওলানা আব্দুচ্ছালাম কুদছী রহ. এর মরণোত্তর সম্মাননা স্মারক গ্রহন করেন, মরহুমের বড় ছেলে, লেখক ফোরামের নির্বাহী সদস্য মোহাম্মদ আব্দুল আজিজ। স্বভাবকবি আলহাজ্ব কাজী মোহাম্মদ আলী অসুস্থতাবোধ করায় তাঁর পক্ষে সম্মাননা ক্রেস্ট গ্রহন করেন, বড় ছেলে, রামু লেখক ফোরামের উপদেষ্টা মাওলানা কাজী মোহাম্মদ এরশাদুল্লাহ।

সাধারণ সম্পাদক আহমদ ছৈয়দ ফরমানের সঞ্চালনায় এ অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন, কবি এম. সুলতান আহমদ মনিরী, সংগঠনের উপদেষ্টা বিশিষ্ট ইসলামী গবেষক মাওলানা আ.হ. ম নুরুল কবির হিলালী, কক্সবাজার জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক এড. হোছাইন আহমদ আনছারী, রামু সরকারী কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ আব্দুল হক, কক্সবাজার ইসলামী সাহিত্য ও গবেষণা পরিষদের সাধারণ সম্পাদক মাওলানা কাযী মোহাম্মদ এরশাদুল্লাহ, রামু প্রেস ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সাংগঠনিক সম্পাদক এস. মোহাম্মদ হোসেন, সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা আহবায়ক ও বর্তমান উপদেষ্টা মাওলানা আতাউর রহমান, খরুলিয়া বাজার কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের খতিব, অনুবাদক ও লেখক মাওলানা মোহাম্মদ হাসান, রামু প্রেস ক্লাবের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক খালেদ হোসেন টাপু, কক্সবাজার জেলা তাঁতীলীগের সহ-সভাপতি আনছারুল হক ভূট্টো, শিক্ষানুরাগী নজরুল ইসলাম।
অনুষ্ঠানের দুটি পর্বের শুরুতে পবিত্র কুরআন তিলাওয়াত করেন, হাফেজ মুহাম্মদ আবরার ও মুহাম্মদ জুনাইদ।

এ অনুষ্ঠানে আলোচনায় অংশ নেন, সংগঠনের সহ-সভাপতি, তরুণ লেখক হাফেজ সাইফুল ইসলাম, সাংবাদিক মুহাম্মদ আবু বকর ছিদ্দিক, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক, কবি এস. এম আবুল কালাম আযাদ, অর্থ সম্পাদক মাওলানা মুহাম্মদ দিদারুল আলম, ছাত্রনেতা হাফেজ শওকত আলী, তরুণ প্রকৌশলী কাউছার আলম ইমু, রামু লেখক ফোরামের সহযোগী সদস্য ও পুস্পকলি’র বিভাগীয় সম্পাদক মুহাম্মদ অলি উল্লাহ আরজু, সহযোগী সদস্য, কবি শফিকুল ইসলাম, নবীন লিখিয়ে মাওলানা যায়নুল আবেদীন, জুনাইদ সৌরভ, হাফেজ মোরশেদ হোসাইন জমিল, মাওলানা মাহমুদুল হক, হাফেজ আল-হাদী প্রমুখ।
এসময় সুললিত কন্ঠে শিশু শিল্পি আবু জর গিফারীর ইসলামী সঙ্গীত পরিবেশনে অনুষ্ঠান প্রাণবন্ত হয়ে উঠে।
অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, গঠনমূলক লেখালেখি ও সূস্থধারার সাহিত্য -সংস্কৃতি চর্চায় ২০০৮ সালের ১৮এপ্রিল প্রতিষ্ঠিত রামু লেখক ফোরাম দেড় দশক যাবৎ দৃঢ়তার সাথে আদর্শিক পথচলা অব্যাহত রেখেছে। সমাজের সমস্যা-সম্ভাবনা ও ইতিহাস-ঐতিহ্য নিয়ে গঠনমূলক লেখালেখি, মননশীল সাহিত্য-সংস্কৃতি চর্চা এবং রামুর সার্বিক উন্নয়নে বিভিন্ন দাবীতে এ সংগঠনের ক্ষুরধার লিখনী ও কর্মধারা আরও বেগবান হবে ইনশাআল্লাহ।
বক্তারা আরও বলেন, “শাণিত কলমের কালিতে ফুটাবো স্বপ্নের শতফুল / নবপ্রজন্ম খুঁজে পাবে আত্মপরিচয়ের মুল” প্রতিপাদ্যে প্রকাশিত সাহিত্য সাময়িকী পুষ্পকলি রামুর সাহিত্যাঙ্গনে এক অনন্য সংযোজন। রামুর সাহিত্যাঙ্গনকে সজীব করে তুলতে এ প্রকাশনা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। সেই সাথে কিশোরী কবি ফাহিমার কাব্যপ্রয়াস “নিখাদ আলো”ও হতে পারে নবপ্রজন্মকে সুস্থধারার সাহিত্যচর্চায় অনুপ্রাণিত করার এক উপযুক্ত মাধ্যম।

মহান আল্লাহর দরবারে বিশেষ মুনাজাতের মাধ্যমে অনুষ্ঠান সম্পন্না হয়।

 
  
%d bloggers like this: