এম.এ আজিজ রাসেল:
করোনার জন্য দুই বছর উদযাপিত হয়নি রাখাইন সম্প্রদায়ের সাংগ্রেং জলকেলি উৎসব। তাই করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ায় এবার মহাসমারোহে জেলায় শুরু হয়েছে মৈত্রিময় জলকেলি উৎসব। সোমবার (১৮ এপ্রিল) থেকে মহেশখালীতে শুরু হয়েছে ৩দিন ব্যাপী জলকেলি উৎসব। দুপুরে উৎসবের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন মহেশখালী দক্ষিণ রাখাইন পাড়া বৌদ্ধ বিহারের ভান্তে।

মহেশখালী রাখাইন যুব উন্নয়ন যুব সংঘের নবনির্বাচিত সভাপতি মংক্য ওয়ান ও সাধারণ সম্পাদক মংথেন হ্লা বলেন, নতুন বছরকে বরণ করা জন্য রাখাইন সম্প্রদায় প্রতিবছর নববর্ষ পালন করে থাকে। এবার ১৩৮৩ মগীসনকে বিদায় জানিয়ে বরণ করা হচ্ছে ১৩৮৪ মগীসনকে।

বিশিষ্ট স্বর্ণকার জ জ রাখাইন বলেন, উৎসবের মূল লক্ষ্য অতীতের সকল ব্যথা—বেদনা, গ্লানি ভুলে ভ্রাতৃত্ববোধের মাধ্যমে ভবিষ্যতের দিকে এগিয়ে যাওয়া।

উদ্বোধনের শুরু হয় জলকেলি উৎসব। রঙিন ফুল আর নানা কারুকার্যে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে প্যান্ডেলের চারপাশ। সবার মাঝে এখন বর্ষ বরণের আমেজ। রাখাইন তরুণ—তরুণীরা নতুন ও আকর্ষণীয় পোশাক পরিধান করে সেজেগুঁজে রাস্তার মোড়ে মোড়ে এবং রাখাইন পল্লীতে তৈরি করা জলকেলি উৎসবের প্যান্ডেলে একে অপরকে পানি নিক্ষেপ করে আনন্দ প্রকাশ করছে। এসময় বাদ্য বাজিয়ে নাচ—গানসহ চলে আনন্দঘন অনুষ্ঠান। আগামী ২০ এপ্রিল জলকেলি উৎসব শেষ হবে।

 
  
%d bloggers like this: