নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
তানযীমুল উম্মাহ ফাউন্ডেশনের “হিফযুল কুরআন অ্যাওয়ার্ড ও কুরআন উৎসব” জমকালো আয়োজনের মধ্য দিয়ে সম্পন্ন হয়েছে।

রবিবার (১৭ এপ্রিল) চট্টগ্রামের টাইগারপাস নেভী কনভেনশন সেন্টারে ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান, বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ হাবীবুল্লাহ মুহাম্মদ ইকবালের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, ফেনী, নোয়াখালী ও লক্ষ্মীপুরে তানযীমুল উম্মাহর ১১টি হিফজ মাদ্রাসার ২৩৯ জন হিফজ সমাপনকারী শিক্ষার্থী ও তাদের বাবা-মাকে সংবর্ধনা দেওয়া হয়।

ভাইস চেয়ারম্যান ড. মীম আতিকুল্লাহর উদ্বোধনী বক্তব্যের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের কার্যক্রম শুরু হয়।

এতে প্রধান অতিথি ছিলেন বিশ্ব নন্দিত আরবী সাহিত্যের দিকপাল, চট্টগ্রাম জামেয়া আল দারুল মা’আরিফ আল ইসলামিয়ার মহাপরিচালক আল্লামা সুলতান যওক নদভী।

বিশেষ মেহমান ছিলেন, উপমহাদেশের অন্যতম বিদ্যাপীঠ জামিয়া আল আহলিয়া দারুল উলুম মঈনুল ইসলাম হাটহাজারী মাদ্রাসার মহাপরিচালক মাওলানা মুফতি মুহাম্মদ ইয়াহইয়া।

হিফযুল কুরআন অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠানে আলোচনা করেন আরবী ও বাংলা সাহিত্যের জ্বলন্ত কিংবদন্তি আল্লামা ফুরকান উল্লাহ খলিল।

বক্তব্য রাখেন, ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিঃ শারিয়াহ বোর্ডের চেয়ারম্যান ও চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর ড. গিয়াস উদ্দিন তালুকদার, প্রফেসর ড. আ ক ম আবুল কাদের, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর ড. আহমদ আলী, শিক্ষাবিদ গবেষক ড. আ ফ ম খালেদ হোসেন, আল জামিয়া আল ইসলামিয়া পটিয়ার মুহাদ্দিস মুফতি শামশুদ্দিন জিয়া, বায়তুশশরফ আদর্শ কামিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ প্রফেসর ড. সাইয়্যেদ মুহাম্মদ আবু নোমান, আইআইইউসির প্রফেসর ড. বি এম মফিজুর রহমান, তানযীমুল উম্মাহ ফাউন্ডেশনের সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান ড. আব্দুল্লাহ আল মামুন, ভাইস চেয়ারম্যান হাফেজ মাওলানা মুহাম্মদ আব্দুল আলিম, সিনিয়র ডিরেক্টর আ ন ম রাশেদুল ইসলাম সায়েম, সিনিয়র ডিরেক্টর মিয়া মুহাম্মদ আসলাম।

এছাড়া চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে সহযোগী অধ্যাপক ড.শফিউল্লাহ কুতুবী, জামেয়া দারুল মাআরিফ আল ইসলামিয়ার সিনিয়র শিক্ষক আফীফ ফুরকানসহ গুণীজন উপস্থিত ছিলেন।

প্রতি বছরের ন্যায় এবারও তানযীমুল উম্মাহ ফাউন্ডেশন পরিচালিত এবারও ১১তম “হিফজুল কুরআন অ্যাওয়ার্ড প্রোগ্রাম” ঢাকা, চট্টগ্রাম, খুলনা ও বগুড়ায় ছয়টি ভেন্যুতে অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

রবিবার সকাল সাড়ে ৮ টা থেকে অ্যাওয়ার্ড প্রাপ্ত শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের পদচারণায় মুখরিত হয়ে ওঠে নগরীর কনভেনশন সেন্টার।

হিফজ সম্পন্ন করা শিক্ষার্থীদের সুরের মূর্ছনায় তিলাওয়াত পরিবেশন ও মনোজ্ঞ ইসলামি সঙ্গীতে মাতিয়ে তুলে উপস্থিত দর্শকদেরকে। বিভিন্ন আরবী ক্যালিগ্রাফি ডিজাইনের ফেস্টুন আর মনোরম পরিবেশ পুরো সেন্টারকে আলোকিত করে তোলে। দেশবরেণ্য ইসলামিক স্কলার ও শিক্ষাবিদদের আগমন অনুষ্ঠানকে আরো মহিমান্বিত করেছে।

আমন্ত্রিত মেহমানগণ তাদের আলোচনায় সুন্দর আয়োজনের জন্য তানযীমুল উম্মাহ পরিবারের প্রতি উষ্ণ উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেন।

বক্তাগণ বলেন, কুরআন হিফজের পাশাপাশি দেশের শিক্ষাব্যবস্থার সাথে সমন্বয় রেখে মানসম্মত শিক্ষা দেওয়ার মাধ্যমে যোগ্য নাগরিক তৈরির অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করে যাচ্ছে তানযীমুল উম্মাহ ফাউন্ডেশন। বিশ্ব ব্যবস্থার এই যুগে ইসলামের শ্রেষ্ঠত্ব প্রমাণ করার যোগ্যতা সম্পন্ন ইসলামী স্কলারের যথেষ্ট অভাব। শিক্ষার্থীদেরকে সেই অভাব পূরণে এগিয়ে আসতে হবে। আজকে যারা হাফেজে কুরআন হিসেবে সংবর্ধিত, তাদের কুরআনের মর্মার্থ বুঝে পড়া, নিজেদের যুগ- শ্রেষ্ঠ আলিম হিসেবে গড়ে তুলতে হবে। পুরো কুরআন যেভাবে মুখস্থ করতে তারা সক্ষম হয়েছে, ঠিক তেমনি পুরো কুরআনের জ্ঞান আত্মস্থ করার চেষ্টা করতে হবে। সৎ, যোগ্য নাগরিক তৈরি করতে কুরআনের শিক্ষায় আলোকিত করা আমাদের নৈতিক দায়িত্ব,তানযীমুল উম্মাহ সেই দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছে, যা আমাদের দেশ ও জাতি গঠনে আশান্বিত করেছে । অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠানে সংবর্ধিত শিক্ষার্থীদেরকে কুরআন আলোকে জীবন গঠন ও দেশকে আলোকিত করার জন্য যোগ্য ও দক্ষ আলিম হিসেবে গড়ে তুলার জন্য উপস্থিত অভিভাবকদের প্রতি আহবান জানান বক্তারা।

বিভিন্ন অধিবেশনে পুরো প্রোগ্ৰাম সঞ্চালনা করেছেন তানযীমুল উম্মাহ হিফয মাদরাসা কক্সবাজার শাখার প্রিন্সিপাল রিয়াদ হায়দার, তানযীমুল উম্মাহ মাদরাসার উত্তরা শাখার প্রিন্সিপাল এইচ এম আবদুল্লাহ আল মামুন, তানযীমুল উম্মাহ গার্লস হিফয মাদরাসা, চট্টগ্রাম শাখার কো-অর্ডিনেটর আব্দুল্লাহ, তানযীমুল উম্মাহ মাদরাসা চট্টগ্রাম শাখার শিক্ষক হাস্সান ফুরকান।

এছাড়াও চট্টগ্রাম অঞ্চলের অনেক বিশিষ্ট আলেমে দ্বীন, শিক্ষাবিদ, সামাজিক ব্যক্তিত্ব, তানযীমুল উম্মাহ চট্টগ্রাম বিভাগের মাদ্রাসাসমূহের প্রধান ও শিক্ষকগণ উপস্থিত ছিলেন।

 
  
%d bloggers like this: