মো. নুরুল করিম আরমান, লামা প্রতিনিধি:

বান্দরবানের লামা উপজেলায় সীতারঞ্জন বড়ুয়া (৪০) নামে এক ইউনিয়ন পরিষদ সদস্যকে আটক করেছে পুলিশ। সীতারঞ্জন বড়–য়া উপজেলার রুপসীপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের ৩নং ওয়ার্ড সদস্য। রবিবার দুপুরে পুলিশ সীতা রঞ্জন বড়–য়াকে উপজেলা সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে তুললে দীর্ঘ শুনানির পর তার জামিন মঞ্জুর করেন বিজ্ঞ বিচারক।

জানা যায়, স্থানীয়দের দাবীর প্রেক্ষিতে রূপসীপাড়া ইউনিয়নের অংহ্লা পাড়া হতে দুর্গম পাহাড়ি মোহাম্মদ পাড়া যাওয়ার রাস্তার কাজ করা শুরু হয়। রাস্তা কাজ করতে গিয়ে পাহাড়ের অংশ কাটা হয়। এ ঘটনা জানাজানি হলে রবিবার বালুমহাল ও মাটি ব্যবস্থাপনা আইন-২০১০ এর ধারা ও পেনালকোডের ৪৩১ ধারা মতে সীতা রঞ্জন বড়–য়ার বিরুদ্ধে মামলা করে পুলিশ। মামলা নং নং-১১, তারিখ ১৭ এপ্রিল ২০২২ইং। এ মামলায় এজাহার নামীয় দুই ও অজ্ঞাতনামা আরো ৮-১০ জনকে আসামী করা হয়। এর আগে পুলিশ অভিযান চালিয়ে পাহাড় কাটার সাথে সম্পৃক্ত থাকার অভিযোগে সীতারঞ্জন বড়ুয়াকে আটক করেন। একই সময় পাহাড় কাটার কাজে ব্যবহৃত স্কেভেটরটিও জব্দ করে পুলিশ।

পাহাড় কাটার ঘটনায় ইউপি সদস্য সহ ৮-১০ জনের বিরুদ্ধে মামলার সত্যতা নিশ্চিত করে লামা থানা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ শহীদুল ইসলাম চৌধুরী বলেন, পাহাড় কাটা অপরাধ জেনেও ইউপি সদস্য সীতা রঞ্জন বড়–য়া রাস্তা নির্মাণের নামে পাহাড় কেটেছেন। আইনের কাছে সবাই সমান। তাই পাহাড় কাটার অভিযোগে তাকে আটক করা হয়েছে। সরকার জলবায়ু ইস্যুতে কঠোর। পরিবেশ ও প্রকৃতি রক্ষায় সরকার নানামুখী পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। যারা পাহাড় কাটবে তাদের ছাড় দেয়া হবেনা৷

 
  
%d bloggers like this: