হ্যাপী করিম, মহেশখালী :
মহেশখালী উপজেলার কালারমারছড়া ইউনিয়নকে মডেল ইউনিয়ন হিসেবে গড়ে তুলতে ওয়ার্ড পর্যায়ে অংশীজন সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে স্থানীয় প্রতিটি ওয়ার্ড থেকে শিক্ষক-শিক্ষিকা, ইমাম, সচেতন মহল, গনমাধ্যমকর্মী’সহ শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।

শনিবার (১৬ এপ্রিল) বিকেল ৪টায় কালারমারছড়া ইউনিয়ন পরিষদের মাঠে ইউপি সচিব নজরুল ইসলামের সঞ্চালনায় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তর এবং দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রনালয়ের অর্থায়নে বন্যা ও ঘুর্ণিঝড় প্রবন এলাকায় দুর্যোগ সহনশীল মডেল ইউনিয়ন গড়ে অংশীজন যৌথ সভায়
প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা অনুষ্ঠানে নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ ইয়াছিন।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, জেলা ত্রান ও পুনর্বাসন কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর আলম, মহেশখালী থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আবদুল হাই, উপজেলা ইঞ্জিনিয়ার সবুজ কুমার, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা রাশেদুল ইসলাম।

কালারমারছড়া ও ইউপি চেয়ারম্যান তারেক বিন ওসমান শরীফের সভাপতিত্বে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।
এ সময় বক্তারা বলেন, শীঘ্রই মডেল ইউনিয়নের কাজ শুরু হবে। ইউনিয়নের অবকাঠামোগত পরিবর্তনে সংশ্লিষ্টদের পরামর্শ দেয়ার অনুরোধ জানান যেমন, রাস্তা-ঘাট, হাসপাতাল, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, টেকসই বেড়িবাঁধ, সাইক্লোন সেন্টার, গাইডওয়াল, কালভার্ট, ব্রিজ, নালা সহ দরিদ্র জনগোষ্ঠীদের জীবনমান উন্নয়নে কাজ করা হবে। সেক্ষেত্রে প্রয়োজন স্থানীয়দের স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণ।

উল্লেখ্য- দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তর এবং দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রনালয়ের অর্থায়নে বন্যা ও ঘুর্ণিঝড় প্রবন এলাকায় দুর্যোগ সহনশীল মডেল ইউনিয়ন গড়ে তোলা প্রকল্পের অধীনে সারা দেশে ৫টি ইউনিয়নকে মডেল ইউনিয়ন হিসেবে গড়ে তুলছে সরকার। সেখানে ঘুর্ণিঝড় প্রবন এলাকা হিসেবে কালারমারছড়া ইউনিয়নকে নির্ধারণ করা হয়েছে। সামগ্রীক ভাবে ঘুর্নিঝড় পূর্ববর্তী ও পরবর্তী ক্ষতি রোধে কালারমার ছড়া ইউনিয়নে প্রকল্পের কাজ শুরু হবে।

 
  
%d bloggers like this: