জালাল আহমদ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি:
বাংলাদেশ সরকারের তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী ডক্টর হাছান মাহমুদ এমপি বলেছেন, ছাত্র জীবন মানুষের জীবনের একটি গুরুত্বপূর্ণ সময়। ছাত্র জীবন মানেই নানা বৈরীতাকে পেছনে ফেলে সামনে এগিয়ে যাওয়া। ছাত্র জীবনে স্বপ্ন দেখতে হবে এবং স্বপ্ন বাস্তবায়ন কাজ করতে হবে। পৃথিবীর অনেক কৃতিমান মানুষ আছে ,যারা বিশ্ববিদ্যালয়ের গন্ডি পেরোতে পারে নি। কিন্তু তারা বাস্তব জীবনে সফল।
বিলগেটস কম্পিউটার সায়েন্স এর ছাত্র ছিলেন। কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয় পার হতে পারে নি। অথচ তিনি পৃথিবীর সেরা ধনী ছিলেন।
রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর স্কুলে যায় নি। নজরুল স্কুল থেকে পালিয়েছেন। কিন্তু তারা বাস্তব জীবনে সফল হয়েছেন। বিশ্ববিদ্যালয় জীবনে ভালো ফলাফল করতে হবে। কিন্তু ভালো ফলাফল না করলে যে জীবন বিফল তা নয়।
আমি ৮ ম শ্রেণী পর্যন্ত ভালো পড়াশোনা করেছি। তারপর ছাত্র রাজনীতিতে সক্রিয় হয়েছি।ফলে ভালো ফলাফল করতে পারি নি।তাই এটা নিয়ে আমার জীবনে কিছু আক্ষেপ আছে।
আজ ১৬ এপ্রিল শনিবার সন্ধ্যায় রাজধানীর তোপখানা রোডের চট্টগ্রাম সমিতির ৯ম তলায় জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত বৃহত্তর চট্টগ্রামের শিক্ষার্থীদের সংগঠন “চট্টগ্রাম জেলা ছাত্র কল্যাণ পরিষদ , জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়” কর্তৃক আয়োজিত এক ইফতার মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

বিদেশে পড়াশোনা প্রসঙ্গে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের এই যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক বলেন,
বিদেশে গিয়ে আমি কিছুটা পড়াশুনা করেছি। বিদেশে সঞ্জয় লাহিড়ী নামে আমার এক বন্ধু ছিল। তিনি সময় কে ওষুধে মতো ব্যবহার করতেন। আমরা যেমন ওষুধের পুরো অংশ ব্যবহার করি, তিনিও সময়টাকে পুরোপুরি ব্যবহার করতেন।

চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া নিয়ে নির্বাচিত এই সংসদ সদস্য আরো বলেন , বন্ধুদের মধ্যে কেউ যদি পিছিয়ে পড়ে‌ তাহলে তাকে সহযোগিতা করবে। প্রয়োজনে চট্টগ্রাম সমিতির সঙ্গে যোগাযোগ করিয়ে দিবে।
মা – বাবার প্রতি দায়িত্বশীল আচরণ করার কথা স্মরণ করে দিয়ে তিনি বলেন ,বাবা- মা যখন বৃদ্ধ হয়ে যায়, তখন তারা ছোট হয়ে যায়। ছোটকালে তারা যেভাবে আমাদেরকে লালন পালন করেছেন, আমাদেরও দায়িত্ব আছে বড় হয়ে তাদের কে দেখাশোনা করার।
পাশ্চাত্যের অন্ধ সংস্কৃতি আমাদের কে অনুসরণ করলে চলবে না। আমাদের সংস্কৃতি আমাদের কে ধরে রাখতে হবে।

সংগঠনের সভাপতি ফেরদৌস আলম এর সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক সেতু নাথের সঞ্চালনায় আয়োজিত এই ইফতার মাহফিলে
বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির উপ – প্রচার এবং প্রকাশনা সম্পাদক মোহাম্মদ আমিনুল ইসলাম বলেছেন, রমজান মাসে শুধু উপোস থাকলেই রোজা হয় না। সকল ধরনের শারীরিক এবং মানসিক অপরাধ থেকে দূরে থাকতে হবে। রমজান মাসের শারীরিক ও পার্থিব ইতিবাচক দিক আছে। রমজান মাস নিয়ামতের মাস। রমজান মাসের শিক্ষা কে কাজে লাগিয়ে আমরা আলোকিত ভবিষ্যত গড়তে পারব।
অনুষ্ঠানে আরেক বিশেষ অতিথি চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক , সাবেক কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ নেতা শাহজাদা মহিউদ্দিন বলেন , আমরা রাজনীতি করি। রাজনৈতিক ছাত্র সংগঠনের মধ্যে এক ধরনের বিরোধ থাকে।‌‌তাই শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কেন্দ্রীক এ ধরনের নির্দলীয় ছাত্র সংগঠন থাকা দরকার। যাতে সাধারণ শিক্ষার্থীদের স্বার্থে কাজ করা যায়। চট্টগ্রাম ও কক্সবাজারে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ব্যাপক উন্নয়ন হচ্ছে। ভবিষ্যতে কক্সবাজার ও চট্টগ্রামের জনগণ তার সুফল ভোগ করবে।
এ সময় আরো বক্তব্য রাখেন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক শহীদ কাদের চৌধুরী, চট্টগ্রাম সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক নাছির উদ্দিন , চট্টগ্রাম সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক গিয়াস উদ্দিন খান, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুব ও ক্রীড়া উপ- কমিটির সদস্য মামুন চৌধুরী,
এ সময় উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি শাহাদাত হোসেন রুবেল, জবির কক্সবাজার ছাত্র কল্যাণ পরিষদের সভাপতি আবুল হোসেন এবং সাধারণ সম্পাদক বোরহান উদ্দিন প্রমুখ।

 
  
%d bloggers like this: