হ্যাপী করিম, মহেশখালী :
আসন্ন পবিত্র মাহে রমজান মাসের পূর্ব প্রস্তুতি হিসেবে প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত দেশব্যাপী ১কোটি দরিদ্র জনগোষ্টির মাঝে টিসিবি’র পণ্যের ন্যায্যমূল্যের বিপণনে গণমাধ্যমকর্মীদের সঙ্গে মহেশখালী’র নবাগত উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ ইয়াছিন’র মতবিনিময় করেছেন।

১৯ মার্চ শনিবার বিকাল ৪টায় উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ে মতবিনিময় সভায় মহেশখালী একাধিক জন গুরুত্বপূর্ন বিষয়ে সংবাদকর্মীরা আলোচনা করেন। এসময় মহেশখালী সার্বিক বিষয়ে ইউএনও গণমাধ্যমকর্মীদের সহযোগিতা কামনা করেন।

মহেশখালী উপজেলায় ১৫ হাজার ৮শ ৩৯টি পরিবাবের মাঝে মসুর ডাল, চিনি, আটা, লিটার সয়াবিন তেল, ছোলা, পেয়াজ, খেজুর স্বল্পমূল্যে টিসিবির পন্য বিক্রয় করা হবে। এতে মহেশখালী পৌরসভার পুটিবিলা ইসলামিয়া ফাজিল মাদরাসা থেকে ২০ মার্চ সকাল থেকে বিতরণ শুরু হবে। মহেশখালী-কুতুবদিয়ার আসনে সাংসদ আলহাজ্ব আশেক উল্লাহ রফিক পন্য বিক্রয় ও বিতরণের আনুষ্টানিক উদ্বোধন করবেন। মহেশখালীর নবাগত উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ ইয়াছিন ও উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মোঃ রাশেদুল ইসলাম বিতরণ বিষয়ে বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর প্রদান করে এবং খেজুর রোজার ৪দিন পুর্বে বাজারে পাওয়া যাবে বলে জানান।

মত বিনিময় কালে উপস্থিত ছিলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা ছালেহ আহমদ, বীর মুক্তিযোদ্ধা ডাঃ ফিরোজ খাঁন, মহেশখালী প্রেসক্লাব সভাপতি আবুল বশর পারভেজ, সাধারণ সম্পাদক এম ছালামত উল্লাহ বিএ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক গাজী আবু তাহের, অর্থ সম্পাদক মকছুদুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক এম তারেক রহমান, প্রেসক্লাবের কার্যকরী সদস্য এম আমিনুল হক,সাবেক সভাপতি জয়নাল আবেদীন, সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক এম রমজান আলী,সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক এম বশির উল্লাহ, প্রচার ও দপ্তর সম্পাদক আব্দুর রশিদ, সাবেক সহ-সভাপতি সিরাজুল হক সিরাজ, সদস্য- সরওয়ার কামাল, নুরুল কাদের, সিরাজুল ইসলাম।

মহেশখালী উপজেলা প্রেসক্লাবে সভাপতি মোহাম্মদ ইউনুস, সাধারণ সম্পাদক অ.ন.ম হাসান, জনকন্ঠের প্রতিনিধি ফারুক ইকবাল, রিপোটার্স ইউনিটির সভাপতি মহেশখালী শাখা সিরাজুল মোস্তফা রুবেল, শিক্ষানবীস সংবাদকর্মী আব্দুল্লাহ শাহরিয়ার বাপ্পী প্রমুখ।

উল্লেখ্য- মহেশখালতে সরকারি বিপণন সংস্থা ‘ট্রেডিং কর্পোরেশন অব বাংলাদেশ-টিসিবি’র বিক্রয় সামগ্রীর চাহিদা বেড়েছে। কিনতে নিম্ন আয়ের মানুষের দীর্ঘ লাইনে দেখা গেছে মধ্য আয়ের মানুষেরও ভিড়। তবে পণ্য কিনতে আসা লোকজনের মধ্যে নিরাপদ শারীরিক দূরত্ব নির্ধারণে চিহ্ন থাকলেও দাঁড়ানোর ক্ষেত্রে বেশির ভাগ নিয়ম উপেক্ষা করে ভিড় জমান।

 
  
%d bloggers like this: