আব্দুস সালাম,টেকনাফ:
কক্সবাজারের টেকনাফে পৃথক অভিযান চালিয়ে ইয়াবা ট্যাবলেট, ক্রিস্টাল মেথ আইস এবং বিয়ার উদ্ধার করেছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)। এসময় দুই ব্যক্তিকে আটক করা হয়।

টেকনাফ ২ বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল শেখ খালিদ মোহাম্মদ ইফতেখার গণমাধ্যমকে এসব তথ্য নিশ্চিত করেন।

তিনি জানান, মঙ্গলবার (১৫ মার্চ) ভোররাতে টেকনাফের হোয়াইক্যং ইউনিয়নের ঝিমংখালী এলাকার জনৈক নুর কবিরের মাছের ঘেরে মাদকের একটি বড় চালান লুকায়িত অবস্থায় রয়েছে। এমন তথ্যের ভিত্তিতে ঝিমংখালী বিওপি এবং ব্যাটালিয়ন সদর এর ২টি বিশেষ টহলদল তাৎক্ষণিকভাবে বর্ণিত এলাকায় গমণ করে তল্লাশী অভিযান পরিচালনা করে। তল্লাশীর এক পর্যায়ে উক্ত স্থানে নুর কবিরের মাছের ঘেরের জালের ভিতর লুকায়িত অবস্থায় ৫ কোটি ৩৮ লাখ টাকা মূল্যের এক কেজি ৭৬ গ্রাম ক্রিস্টাল মেথ আইস উদ্ধার করা হয়। উক্ত স্থানে ঘেরের মালিক বা অন্য কোন বেসামরিক ব্যক্তি না থাকায় কোন পাচারিকারীকে আটক করা সম্ভব হয়নি। ঘেরের মালিককে আটকের নিমিত্তে সকাল পর্যন্ত অভিযান পরিচালনা করা হলেও তাকে আটক করা সম্ভব হয়নি। পলাতক আসামীকে আটকের নিমিত্তে অত্র ব্যাটালিয়নের গোয়েন্দা কার্যক্রম চলমান রয়েছে।
পলাতক আসামী হলেন, টেকনাফ হোয়াইক্যং (খারাংখালী) পূর্ব মহেশখালীয়া পাড়ার মৃত নুরুল ইসলামের ছেলে মো. নুর কবির (৩২)।

তিনি আরো জানান,উক্ত ঘেরের মালিককে পলাতক আসামী দেখিয়ে জব্দকৃত ক্রিস্টাল মেথ আইসগুলি টেকনাফ মডেল থানায় জমা দেওয়ার কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

অপরদিকে একইদিনে টেকনাফ ২বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধীনস্থ হোয়াইক্যং বিওপি’র বিশেষ টহলদলের অভিযানে ১৪ হাজার ৫০০ টাকা মূল্যের ৫৮ ক্যান আন্দামান গোল্ড বিয়ার (মালিকবিহীন অবস্থায়) উদ্ধার করা হয়। উদ্ধারকৃত মালিকবিহীন বিয়ারগুলো বর্তমানে ব্যাটালিয়ন সদরের ষ্টোরে জমা রাখা হয়েছে এবং প্রয়োজনীয় আইনী কার্যক্রম গ্রহণ পরবর্তীতে তা উর্দ্ধতন কর্মকর্তা, চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের প্রতিনিধি, স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও মিডিয়া কর্মীদের উপস্থিতিতে ধ্বংস করা হবে।

এছাড়া একই ব্যাটালিয়নের অধীনস্থ হোয়াইক্যং চেকপোষ্ট হতে ১ জন আসামীসহ ৮ লক্ষ ৩৯ হাজার টাকা মূল্যের ২ হাজার ৭৯৫ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট এবং ১টি মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়। আটককৃত আসামীকে (বাংলাদেশী নাগরিক) জব্দকৃত ইয়াবা ট্যাবলেট এবং মোবাইল ফোনসহ নিয়মিত মামলার মাধ্যমে টেকনাফ মডেল থানায় হস্তান্তর করার কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

তাছাড়া একই ব্যাটালিয়নের অধীনস্থ হোয়াইক্যং চেকপোষ্ট হতে কে নাইন ডগের মাধ্যমে ১ জন আসামীসহ ১ লক্ষ ৫৯ হাজার ৫০০ টাকা মূল্যের ৫৩০ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট এবং ১টি মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়। আটককৃত আসামীকে (বাংলাদেশী নাগরিক) জব্দকৃত ইয়াবা ট্যাবলেট এবং মোবাইল ফোনসহ নিয়মিত মামলার মাধ্যমে টেকনাফ মডেল থানায় হস্তান্তর করার কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

 
  
%d bloggers like this: