নিজস্ব প্রতিবেদক:
কক্সবাজার সদরের ঝিলংজার জানারঘোনার ফুটখালীতে বসত ভিটায় ছাগল প্রবেশের জেরে এলাকার সর্দার আব্দুল কাদের বাবু’র নেতৃত্বে মো: সোহাগ,মো:আশিক সহ কয়েকজন ভাড়াটে সন্ত্রাসী মিলে ধারালো অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে হামলায় করে গুরুতর আহত করে ওই এলাকার বাসিন্দা মো: সেকান্দার সহ তার দুই ছেলে মো: জাহাঙ্গীর, মো:শাহীন এবং তার দুই মেয়ে সহ তার পুত্র বধুকে।

এ ঘটনায় জাহাঙ্গীরের পিতা সেকান্দারের একটি হাত ভেঙে যায়,এবং জাহাঙ্গীরের ভাই মো: শাহীন, তার দুই বোন সহ জাহাঙ্গীরের বউ গুরুতর আহত হয়ে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে চিকিৎসা শেষে বাড়িতে ফিরে প্রতিপক্ষের হুমকিতে ভয়ে দিনপার করছে।

এঘটনায় মো: জাহাঙ্গীর বাদী হয়ে কক্সবাজার সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বরাবর একটি অভিযোগ দায়ের করে।

অভিযোগে মো:জাহাঙ্গীর বলেন,আমাদের উপর হামলাকারীরা খারাপ, দূস্কৃতিকারী,ঝগড়াটে ও দাঙ্গাবাজ হিসেবে এলাকায় পরিচিত। তারা প্রতিনিয়ত দেশের প্রচলিত আইনকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে বেপরোয়া ভাবে চলাফেরা করে।সমাজের কাউকে পাত্তা দেয়না, সবসময় অবৈধ টাকার গরমে দাপট দেখিয়ে এলাকায় ঝগড়া, সরকারি জায়গা দখল সহ নানান অপরাধে লিপ্ত থাকে।

তারই ধারাবাহিতায় গত ১০ মার্চ সকাল আনুমানিক সাড়ে ১০ টার দিকে বিবাদী আব্দুল কাদের বাবুর গৃহপালিত একটি ছাগল আমার সবজি ক্ষেতে প্রবেশ করে সবজি নষ্ট করে দেয়।পরে আমি ছাগলের মালিক বাবুকে ছাগলটি সামলিয়ে রাখার কথা বলায় উল্টো সর্দার বাবু আমার উপর ক্ষীপ্ত হয়ে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ শুরু করে,একপর্যায়ে উপর ঝাঁপিয়ে পড়ে আমাকে মারধর করে গুরুতর আহত করে,এবং আমার বাড়িতে প্রবেশ করে আমার স্ত্রীকে মারধর করে ফেলে রাখে।এসময় আমার চিৎকার শুনে আমার বাবা সেকান্দার আলী ঘটনাস্থলে আসলে সর্দার বাবু লোহার রড দিয়ে আমার বাবাকে হত্যার উদ্দেশ্যে মাথায় আঘাত করলে তিনি তার হাত দিয়ে মাথা রক্ষা করতে গিয়ে লোহার রডের আঘাতে তার একটি হাত ভেঙে যায়।ঘটনার খবর পেয়ে আমার ছোট ভাই মো: শাহীন বাড়িতে আসার পথে বিবাদীরা তাকেও মারধর করে রক্তাক্ত করে,তার চিৎকারে আমার দুই বোন এগিয়ে আসলে তাদেরও মারধর করে গুরুতর আহত করে চলে যাওয়ার আগে প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে যায়।

পরে তাদের কাছ থেকে জানমাল রক্ষা করতে বাংলাদেশ পুলিশের জরুরি সেবা ৯৯৯ এ কল দিলে পুলিশ আমাদের স্হানীয় থানায় অভিযোগ করতে পরামর্শ দেন।পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে আসলে হামলাকারীরা ঘটনাস্থল থেকে চলে যায়। ঘটনার পর থেকে বিবাদীরা থানায় অভিযোগ কিংবা মামলা করলে প্রাণে মেরে ফেলারও হুমকি দিচ্ছে।এলাকায় শান্তিতে বসবাস করতে দেবেনা ও আমাদের এলাকা ছাড়া করারও হুমকি দিচ্ছে,এবং আমাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করবে বলেও হুমকি দিয়েছে।

আমার পরিবারের জানমাল রক্ষা ও আমাদের উপর হামলার বিচারের জন্য আমি কক্সবাজার জেলা পুলিশ সুপার ও সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

 
  
%d bloggers like this: