অনলাইন ডেস্ক: ঢাকার কাছে গাজীপুরের কাপাসিয়ায় ফেসবুক স্ট্যাটাসের জের ধরে দুদল গ্রামবাসীর সংঘর্ষে তিনজন নিহত হয়েছে। পুলিশ এই ঘটনার পেছনে ফেসবুক স্ট্যাটাসের কথা জানিয়েছে। তবে স্থানীয় সাংবাদিকরা জানাচ্ছেন, ঘটনার সূত্রপাত হয় একটি টিকটক ভিডিও জের ধরে।

শনিবার রাত সাড়ে ১১টার কাপাসিয়া উপজেলার সনমানিয়া ইউনিয়নের দক্ষিণগাঁও চরপাড়া গ্রামে এই ঘটনা ঘটেছে বলে জানিয়েছেন কাপাসিয়া থানার ওসি নাঈম হোসেন।

তিনি জানান, ”শনিবার রাত সাড়ে এগারোটার দিকে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ শুরু হলে ৭/৮ জন আহত হয়। তাদের হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে তিনজনের মৃত্যু হয়েছে। ছুরি বা ধারালো অস্ত্রের আঘাতে তাদের মৃত্যু হয়েছে।”

”প্রাথমিকভাবে আমরা জানতে পেরেছি, একটি মেয়েকে ঘিরে ফেসবুকে দেয়া স্ট্যাটাসের জের ধরে এই সংঘর্ষ ঘটেছে। কেন বা কি উদ্দেশ্যে সেটা দেয়া হয়েছে, তা নিয়ে আমরা তদন্ত শুরু করেছি।”

তিনি জানান, ওই সংঘর্ষের ঘটনায় দুইজনকে আটক করা হয়েছে। একটি হত্যা মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলে তিনি জানান।

গাজীপুরের সাংবাদিক নাসির আহমেদ জানাচ্ছেন, টিকটকে একটি ভিডিও আপলোড কেন্দ্র করে দক্ষিণগাঁও চরপাড়া আর নরসিংদীর মনোহরদি গ্রামের দুইটি পক্ষের মধ্যে বিরোধের সূত্রপাত হয়। তবে পুলিশ জানিয়েছে, ফেসবুকের একটি স্ট্যাটাস ঘিরে বিরোধের সূত্রপাত।
পরে দুই পক্ষের মধ্যে একটি আপোষ বৈঠক হয়। শনিবার রাতে চরপাড়া গ্রামে সেই বৈঠক হয়েছিল। সেই বৈঠক শেষেই আবার কথা কাটাকাটির শুরু হলে দুই পক্ষের মধ্যে মারামারি শুরু হয়ে যায়। তখন ওই হতাহতের ঘটনা ঘটে।

এই ঘটনায় জড়িত সবাই কিশোর বা তরুণ বলে জানান। সংঘর্ষের পর দুই গ্রাম থেকেই তারা পালিয়ে গেছে।

ফেসবুকের স্ট্যাটাসের জের ধরে বাংলাদেশে সহিংসতার ঘটনা অবশ্য এটাই প্রথম নয়।

গত শুক্রবার রাতেই সিলেটের বিয়ানীবাজারের জলঢুপে ফেসবুকের মন্তব্যের জের ধরে সংঘর্ষে কমপক্ষে ছয় জন আহত হয়।

গত বছরের ২৬শে নভেম্বর গোপালগঞ্জের কাশিয়ানিতে একটি ফেসবুক স্ট্যাটাসের জের ধরে সংঘর্ষে ৩০ জন আহত হয়। তার আগে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় একটি পোস্টে ঘিরে সংঘর্ষে আহত হয়েছিল ১৫ জন।

বাংলাদেশে বিভিন্ন সময় ফেসবুকে মন্তব্য বা পোস্টের জের সাম্প্রদায়িক সহিংসতার ঘটনাও ঘটেছে।

 
  
%d bloggers like this: