যুগান্তর:  আড়াই মাসেরও বেশি সময় হাসপাতালে ভর্তি থাকার পর বাসায় ফিরেছেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৭টার পর গুলশানের বাসভবনের উদ্দেশ্যে হাসপাতাল ছাড়েন তিনি।

বাসায় তাকে অভ্যর্থনা জানাতে আগে থেকেই উপস্থিত ছিলেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, কেন্দ্রীয় নেতা আমান উল্লাহ আমান, আবদুস সালাম, শিরিন সুলতানা ও আফরোজা আব্বাসসহ নেতারা।

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে করোনা পরিস্থিতি বিবেচনায় হাসপাতালের পরিবর্তে বাসায় রেখে চিকিৎসা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তার চিকিৎসকরা।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বিএনপি চেয়ারপারসনের চিকিৎসায় গঠিত মেডিকেল বোর্ডের ব্রিফিংয়ে এসব কথা বলেন তারা।

খালেদা জিয়ার চিকিৎসক প্রফেসর ফখরুদ্দিন মো. সিদ্দিকী বলেন, দেশে ফের করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে। শুধু জানুয়ারি মাসেই এভারকেয়ার হাসপাতালে ৩৮০ জন কর্মকর্তা-কর্মচারী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। তাই ম্যাডামের স্বাস্থ্যগত ঝুঁকি বিবেচনা চিন্তায় নিচ্ছি। যেহেতু উনার অবস্থা এখন স্ট্যাবল (স্থিতিশীল) আছে সেক্ষেত্রে আমাদের তত্ত্বাবধানে বাসায় চিকিৎসায় রাখা প্রয়োজন। সেই কারণেই তাকে হাসপাতাল থেকে বাসায় পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে মেডিকেল বোর্ড।

নানা রোগে আক্রান্ত খালেদা জিয়া গত বছরের ১৩ নভেম্বর এভারকেয়ার হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন। সেখানে তার অস্ত্রোপচার করা হয়। ৮১ দিন পর আজ তিনি বাসায় ফিরেছেন।

 
  
%d bloggers like this: