সাতকানিয়া প্রতিনিধি:
চট্টগ্রামের সাতকানিয়ায় ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে প্রচারণার সময় দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ ও ইটপাটকেল নিক্ষেপের ঘটনায় আনোয়ার আলী (৫৫) নামের ১ জন নিহত হয়েছে। সে আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী মো: ইলিয়াছের সমর্থক বলে জানা যায়। এই ঘটনায় অন্তত ৮ জন আহত হয়েছে। আহতরা হলেন, স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী মো: ইলিয়াছ চৌধুরীর সমর্থক গিয়াস উদ্দিন (২৯), নারী ইউপি সদস্য প্রার্থী ফারহানা নাছরিন ঝর্ণা (৪০), ইসমাইল হাসান (৩৫), ইয়াছমিন আক্তার (৪২), ঝর্না আক্তার (৩৫) মো: হারুন (৩২), নাসির উদ্দিন টিপুর সমর্থক কামাল উদ্দিন (৪৫) আহমদুর রহমান (৫০)।

আজ (১ ফেব্রুয়ারি) মঙ্গলবার বিকালে উপজেলার ধর্মপুর ইউনিয়নের চাদের পাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত আনোয়ার কুন্ডকুল এলাকার মৃত কালু মিয়ার ছেলে।

জানা যায়, মঙ্গলবার বিকালে ধর্মপুর চাদের পাড়া এলাকায় আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী মো: ইলিয়াছ চৌধুরী কর্মী সমর্থকদের নিয়ে প্রচারণায় বের হলে প্রতিদ্বন্দ্বী নৌকা প্রতীকের প্রার্থী নাসির উদ্দিন টিপুর নেতাকর্মীদের সাথে মুখোমুখি হলে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বেঁধে যায়। এ সময় আশেপাশের কয়েকটি ভবন থেকে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করলে দুই গ্রুপের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও ফাঁকা গুলিবর্ষণ হয়। এ সময় ইটপাটকেলের আঘাতে উভয় পক্ষের ৯ জন আহত হয়। গুরুতর আহত অবস্থায় একজনকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়ার পথে মারা সে যায়। খবর পেয়ে সাতকানিয়া থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে পরিস্থিতি নিয়ে আসে।

সাতকানিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরী বিভাগের ডাক্তার কাজী সোহান বলেন, আনোয়ার আলীকে হাসপাতালে আনার আগে তার মৃত্যু হয়েছে। তার শরীরে উল্লেখ যোগ্য তেমন আঘাতের চিহ্ন নাই। ময়না তদন্ত রিপোর্ট পেলে বিস্তারিত জানা যাবে।

স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী মো: ইলিয়াছ চৌধুরী জানান, আমরা কর্মী সমর্থকদের সাথে নিয়ে শান্তি পূর্ণভাবে প্রচারণা শুরু করলে নৌকার প্রার্থী নাসির উদ্দিন টিপুর নেতৃত্বে আমাদের উপর হামলা চালায়। এসময় তারা লাঠিসোটা নিয়ে আমাদের কর্মীদের বেধড়ক পেটায় ও তাদের ইটপাটকেল নিক্ষেপের আঘাতে আমাদের ৮ জন লোক আহত হয়। তার মধ্যে আনোয়ার আলী মারা যায়।

নৌকার মনোনীত প্রার্থী নাসির উদ্দিন টিপু জানান, আমরা কর্মী-সমর্থকদের নিয়ে চাদের পাড়া এলাকায় নির্বাচনী অফিসে বসে কথা বলছিলাম। এসময় স্বতন্ত্র প্রার্থী ইলিয়াছ চৌধুরী ধারালো অস্ত্র ও লাঠিসোঁটা নিয়ে অতর্কিত ভাবে আমাদের উপর হামলা চালায়। এতে কামালসহ আমাদের কয়েকজন আহত হয়।

সাতকানিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দুল জলিলি জানান, ধর্মপুরে নির্বাচনী প্রচারনাকালে দু্ই প্রার্থী ও তাদের কর্মী সমর্থকদের মধ্যে মুখোমুখি সংঘর্ষে কয়েক জন আহত হয়। সেখান থেকে হাসপাতালে নেওয়ার পর এক ব্যক্তির মৃত্যু হলেও কি কারণে মারা গেছে ময়না তদন্ত রিপোর্ট পেলে জানা যাবে। ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়ন করা হয়েছে।

 
  
%d bloggers like this: