সংবাদদাতা:

রামু উপজেলার খুনিয়াপালংয়ের দারিয়ারদীঘি এলাকায় আদালতে বিচারাধীন জায়গা দখল চেষ্টা অভিযোগ পাওয়া গেছে। জায়গা দখলে বাধা দেয়ায় মা ও গর্ভবতী মেয়ের  উপরজ হামলার চালিয়েছে অভিযুক্তরা। হামলায় আহতরা হয়েছেন ভুক্তভোগী ওই এলাকার মোঃ ফেরদৌস  মুন্সীর স্ত্রী দিলদার বেগম ও তাদের মেয়ে তাহমিনা আকতা। এসময় মোঃ ফেরদৌস মুন্সী বাড়িতে ছিলেন না। তবে ৯৯৯ এ কল পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে হামলকারীরা পালিয়ে যায়। এই ঘটনায় রামু থানায় একটি এজাহার দায়ের করা হয়েছে।
মঙ্গলবার (১ ফেব্রæয়ারি) সকাল ৯টার দিকে এই ঘটনা ঘটে।
এজাহারে অভিযোগ করা হয়েছে, পৈত্রিক ক্রয়সূত্রে ওই জায়গায় ভোগ দখলে রয়েছেন ভুক্তভোগী মোঃ ফেরদৌস মুন্সী। কিন্তু দীর্ঘদিন অবৈধভাবে জায়গাটি জবর দখলের চেষ্টা করে আসছে স্থানীয় মোঃ ইসমাঈলে পুত্র আবুল কাশেম ও বদরুদ্দোজা সিকদারের পুত্র মিজানুর রহমানসহ গং। এই নিয়ে আদালতে মামলা দায়ের করেন ভুক্তভোগী মোঃ ফেরদৌস মুন্সী। মামলাটি বিচারাধীন রয়েছে। মামলারাধীন থাকলেও আইন না মেনে জায়গাটি দখলের জন্য বার বার অপচেষ্টা চালিয়ে আসছে অভিযুক্তরা। এর অংশ হিসেবে মঙ্গলবার (১ ফেব্রæয়ারি) সকাল ৯টার দিকে মোঃ ইসমাঈলে পুত্র আবুল কাশেম ও বদরুদ্দোজা সিকদারের পুত্র মিজানুর রহমানসহ ১০/১২জন মিলে জায়গাটিতে গিয়ে ঘর নির্মাণের চেষ্টা করেন। এসময় তাদের বাধা দিতে যায় ভুক্তভোগী ফেরদৌস মুন্সীর স্ত্রী  স্ত্রী দিলদার বেগম এবং মেয়ে ও ভাইয়ের স্ত্রী। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে তাদের উপর এলোপাতাড়ি হামলা চালায়  অভিযুক্তরা। উপায়ন্তর না দেখে এক পর্যায়ে পুলিশের সেবা নং ৯৯৯ কল দেন তারা। কল পেয়ে রামু থানার এএসআই আশরাফুল আলমের নেতৃত্বে একদল দ্রুত ঘটনাস্থলে যায়। পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে হামলাকারী সটকে পড়ে।
এই ঘটনায় হামলাকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানিয়েছেন রামু থানার ওসি।

 
  
%d bloggers like this: