মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী :

অবৈধ অস্ত্র ও গুলি রাখার দায়ে কক্সবাজার স্পেশাল ট্রাইব্যুনাল-৩ (যুগ্ম জেলা ও দায়রা জজ-১) এর বিচারক মাহমুদুল হাসান ১ জনকে ১০ বছর সশ্রম কারাদন্ড দিয়েছেন। সোমবার ৩১ জানুয়ারি তাঁর আদালতে এ রায় প্রদান করা হয়। কক্সবাজার জেলা ও দায়রা জজ আদালতের প্রশাসনিক কর্মকর্তা এস.এম আব্বাস উদ্দিন এ তথ্য জানিয়েছেন।

মামলার সংক্ষিপ্ত বিবরণ হলো : ২০০৮ সালের ২০ নভেম্বর দুপুর দেড়টার দিকে মহেশখালীর কালামারছরাস্থ আজাদ বোর্ডিং সামনে রাস্তা উপর থেকে একই উপজেলার মাতারবাড়ীর সাইবার ডেইলের নুরুল আমিন এর পুত্র মোঃ সরওয়ার (২০) এবং ফরিদুল আলমের পুত্র আবদুল হাই (৩৩) কে মহেশখালী থানা পুলিশ আটক করে। পরে ধৃত মোঃ সরওয়ার এর লুঙ্গির ভেতর হতে একটি ১২ ইঞ্চি লম্বা দেশীয় তৈরি এলজি এবং তিন রাউন্ড গুলি উদ্ধার করে। এ ঘটনায় মহেশখালী থানার এসআই মোঃ মিজানুর রহমান বাদী উল্লেখিত ব্যক্তিদের আসামি করে মহেশখালী থানায় মামলা দায়ের করেন। যার মহেশখালী থানা নম্বর : ১৭/২০০৮ ইংরেজি। জিআর মামলা নম্বর : ২৯৮/২০০৮ ইংরেজি।

মামলাটি কক্সবাজার স্পেশাল ট্রাইব্যুনাল-৩ (যুগ্ম জেলা ও দায়রা জজ-১) এর বিচারক মাহমুদুল হাসান এর আদালতে বিচারের জন্য অভিযোগ গঠন করা হয়। পরে সাক্ষ্য, জেরা, ৩৪২ ধারায় আসামীদের আত্মপক্ষ সমর্থন, যুক্তিতর্ক শেষে আসামী মোঃ সরওয়ারকে ১৮৭৮ সালের অস্ত্র আইনের ১৯/এ, ১৯/এফ ধারায় দোষী সাব্যস্ত করে ১০ বছর সশ্রম কারাদন্ড প্রদান করে বিজ্ঞ বিচারক মাহমুদুল হাসান সোমবার রায় ঘোষনা করেন। অপর আসামীর আবদুল হাই এর বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ প্রমানিত না হওয়ায় তাকে বেকসুর খালাস প্রদান করা হয়। সাজাপ্রাপ্ত আসামী মোঃ সরওয়ার পলাতক রয়েছে।

রাস্ট্র পক্ষে মামলাটি পরিচালনা করেন এপিপি এডভোকেট আবদুর রউফ এবং আসামী পক্ষে মামলাটি পরিচালনা করেন এডভোকেট মোহাম্মদ নুরুল ইসলাম।

 
  
%d bloggers like this: