ইমাম খাইর, সিবিএন:
কক্সবাজার শহরের হোটেল মোটেল জোনের ‘হোটেল দ্যা আলম’ নামক গেস্ট হাউজে চিরকুট লিখে মো: কাউছার (৪১) আলম নামের পর্যটক আত্মহত্যা করেছেন। চিরকুটে লিখেছেন-‘আমার মৃত্যুর জন্য মেরীনা দায়ী থাকল।’

মঙ্গলবার (২আগস্ট) রাত সাড়ে ১১ টার দিকে তথ্যটি নিশ্চিত করেছেন ট্যুরিস্ট পুলিশ কক্সবাজার রিজিয়নের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ রেজাউল করিম। তার আগে হোটেলের ৪০৬ নম্বর কক্ষ থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়।

নিহত কাউছার আলম জয়পুর হাট সদরের হানাইল মাদ্রাসা এলাকার দিঘী পাড়ার মোফাজ্জল হোসেনের ছেলে।

১৫ পৃষ্ঠার চিরকুটে মৃত্যুর জন্য হোটেল কর্তৃপক্ষসহ কাউকে হয়রানি না করতে লিখে গেছেন ওই পর্যটক। তার ব্যবহারের মোবাইলে দুইটি মেমোরিতে সংরক্ষিত ছবি ও কলরেকর্ড দেখে আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে এবং গ্রামের বাড়ি জয়পুর হাটে লাশটি পাঠাতে অনুরোধ করেন মো: কাউছার আলম।

চিরকুট মতে অভিযুক্ত মোছা: মেরীনা খাতুন নওগা ধামুইর হাট শাহাপুরের মমতাজ উদ্দীনের মেয়ে।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ রেজাউল করিম জানান, বিষাক্ত ওষধ খেয়ে আত্মহত্যা করেছেন বলে প্রাথমিক ধারণা। আত্মহত্যার কারণ এখনো করা যায়নি। তার কাছ থেকে বেশ কয়েকটি চিরকুট পাওয়া যায়। তদন্ত সাপেক্ষে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

হোটেল দ্যা আলম কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, কক্সবাজার বেড়াতে আসলে প্রায় সময় তাদের হোটেলে থাকত কাউছার। মঙ্গলবারও কক্সবাজার আসেন। দুপুরে হোটেলের ৪০৬ নম্বর কক্ষ ওঠেন। কেন আত্মহত্যা করলেন, কারো অজানা।

 
  
%d bloggers like this: