জালাল আহমদ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি:
গবেষণার কাজে পূর্ব প্রকাশিত সমধর্মী লেখার উৎসের অনুসন্ধান, তথ্য ও উপাত্ত যাচাই-বাছাই এবং গবেষণায় চৌর্যবৃত্তি রোধে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে সিমিলারিটি‌ চেকার্স এপ’স ‘dubd21’ উদ্বোধন করা হয়েছে।

আজ ২ আগস্ট (২০২২) মঙ্গলবার দুপুর বেলা একটায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের নিচতলায় ভিসি অফিস সংলগ্ন অধ্যাপক আব্দুল মতিন চৌধুরী ভার্চুয়াল ক্লাসরুমে ‘সিমিলারিটি চেকার’এপস “dubd21” সফটওয়্যার উদ্বোধন করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডঃ মোঃ আখতারুজ্জামান।

তিনি চেকার্স এপ’স এর সূচনা প্রসঙ্গে বলেন,
“উত্তর আমেরিকায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্রদের সাথে এক মতবিনিময় সভায় ইংরেজি ভাষায় সিমিলারিটি চেকার’এপস এর কথা প্রথম শুনেছিলাম। কিন্তু বাংলা ভাষায় এ ধরনের কোন এপস নাই। তখন উপস্থিত ছাত্ররা বলেন, বাংলা ভাষায় এ ধরনের এপ’স আবিস্কারের ক্ষেত্রে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কে উদ্যোগ গ্রহণ করতে হবে।
তখন আমি দেশে ফিরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক এর মাধ্যমে তথ্য প্রযুক্তি ইনস্টিটিউটের সহকারী অধ্যাপক আবদুস সাত্তারের সাথে যোগাযোগ করি। তিনি বিষয়টি নিয়ে ভাববার সময় নেন। আমি তাঁর সাথে গবেষণার বিষয়ে নিয়মিত যোগাযোগ করে আপডেট জানতে চাইতাম।প্রায়ই ৮ মাস অক্লান্ত প্রচেষ্টায় তিনি এই এপ’স আবিস্কারের ক্ষেত্রে সফলতা অর্জন করেছেন।নিজ খরচে তিনি এই এপ’স আবিস্কারের কাজটি করেছেন। এজন্য ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে তাকে অসংখ্য ধন্যবাদ জানাই।

এপস এর নামকরণ সম্পর্কে তিনি বলেন du মানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় , bd মানে বাংলাদেশ এবং 21 মানে ২১ ফেব্রুয়ারি যা বাংলা ভাষার মর্যাদার সাথে সম্পর্কিত।
তিনি গবেষণা প্রসঙ্গে বলেন,”মানুষ তার মৌলিক কাজের মাধ্যমে বেঁচে থাকে। গবেষণার মাধ্যমে আমরা মানুষের কল্যাণে কাজ করে থাকি।
মোস্তফা জব্বার এর বিজয় কিবোর্ড এর প্রসঙ্গ টেনে তিনি বলেন, বাংলা বিভাগের ছাত্র হয়েও বিজয় কিবোর্ড আবিস্কারের মাধ্যমে তিনি কম্পিউটার বিজ্ঞানে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছেন।এই আবিষ্কার তাকে অমর করে রেখেছেন।
এই এপ’স এর বিস্তার প্রসঙ্গে তিনি বলেন, এই এপ’স আবিস্কারের ফলে আন্তর্জাতিকভাবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নাম ইতিহাসে স্থান করে নিবে।
প্রায়োগিক গবেষণার জন্য পুবাচল
রিসার্চ অ্যান্ড এননোভেশন ক্যাম্পাস নির্মাণ করা হবে। কক্সবাজারে যে ক্যাম্পাস আছে , সেটা ব্লু ইকোনমির গবেষণার জন্য জন্য ব্যবহার করা হবে।

উদ্বোধনের আগে চেকার্স এপ’স নিয়ে বিস্তারিত তথ্য- উপাত্ত উপস্থাপন করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের তথ্য প্রযুক্তি ইনস্টিটিউটের সহকারী অধ্যাপক আবদুস সাত্তার।
তিনি বলেন, একটা আর্টিকেল লিখতে অনেক তথ্য উপাত্ত সংগ্রহ করতে হয়। একটা আর্টিকেল এর কয়েকটি প্যারা থাকে। এই প্যারা গুলো বিভিন্ন সোর্স থেকে সংগ্রহ করতে হয়। আর্টিকেল এর কোন অংশটি কোন সোর্স থেকে নেয়া হয়েছে কিংবা সংগ্রহ করা হয়েছে তা এপ’স এর বাটন ক্লিক করলেই ( কোথায় থেকে তথ্যটি সংগ্রহ করা হয়েছে) তার সোর্স বলে দিবে।

এ সময় উপস্থিত শিক্ষক ও সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন তিনি।
এটা কর্মাসিয়ালী ব্যবহার করতে গেলে ছাত্র,শিক্ষক ও গবেষকগণ‌ ফল পাবে। প্লেগারিয়জম (গবেষণায় চৌর্যবৃত্তি ) রোধে কার্যকর ভূমিকা রাখবে।

এ সময় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ডঃ মোঃ নিজামুল হক ভূঁইয়া, প্রক্টর অধ্যাপক ডঃ একেএম গোলাম রব্বানী, সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক ডঃ মোঃ জিয়াউর রহমান,কলা অনুষদের ডীন অধ্যাপক ডঃ আব্দুল বাছির।ডিজেস্টার সায়েন্স এন্ড এনভায়রনমেন্টাল সায়েন্সেস অনুষদের ডীন অধ্যাপক মোঃ জিল্লুর রহমান, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মোঃ বাহালুল হক চৌধুরী সহ গবেষণার সাথে সংশ্লিষ্টরা উপস্থিত ছিলেন।

 
  
%d bloggers like this: