উখিয়া প্রতিনিধি,:

উখিয়ার কোটবাজারে সন্ত্রাসীদের হামলায় ব্যবসায়ী জাহাঙ্গীর আলম গুরুতর আহত হয়েছে। এ সময় দোকানে ব্যাপক ভাঙচুর চালিয়ে ২ লাখ ৩০ হাজার টাকা লুটপাট করে নিয়ে যায়।
গতকাল সোমবার (১৮ জুলাই) বিকেল সাড়ে ৫ টার দিকে কোটবাজার – সোনার পাড়া সড়কের বৌদ্ধ মন্দির সংলগ্ন মেমার্স নিরাপদ ট্রেডার্স নামক দোকানে এ হামলার ঘটনাটি ঘটেছে ।
উখিয়া থানায় দায়েরকৃত এজাহার সূত্রে জানা গেছে, অবসরপ্রাপ্ত প্রাপ্ত শিক্ষক ও জালিয়াপালং ইউনিয়নের সাবেক মেম্বার মাহবুবুল আলমের পুত্র জাহাঙ্গীর আলম কোট বাজার বৌদ্ধ মন্দির সড়কে মেসার্স নিরাপদ ট্রেডার্স নামক প্রতিষ্ঠানে নির্মাণ সামগ্রী ও টিনের ব্যবসা বাণিজ্য পরিচালনা করে আসছে ।
গত ১৬ জুলাই গভীর রাতে তার বাসা থেকে একটি মহিষ চুরি হয়। স্থানীয়দের সাক্ষীদের প্রমাণের ভিত্তিতে চুরি হওয়া মহিষ উদ্ধারে উখিয়া থানায় লিখিত এজাহার দায়ের করে।
গতকাল সোমবার উখিয়া থানার সাব ইন্সপেক্টর তারেক আজিজের নেতৃত্বে একদল পুলিশ মহিষ উদ্ধারে ঘটনাস্থল পরিদর্শনে আসেন ।
আহত ব্যবসায়ী জাহাঙ্গীর আলম অভিযোগ বলেন, পুলিশ চলে যাওয়ার সাথে সাথে শামশুল আলমের পুত্র সাহাব উদ্দিন, ইয়াছিন ও আলমগীর নেতৃত্বে ৪/৫ জন চিহ্নিত সন্ত্রাসী লোহার রড, লাঠি সহ দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে দোকানে ডুকে কেন পুলিশ আসছে এমন জিজ্ঞাসা করে এলোপাতাড়ি হামলা চালায় । চিৎকার শুনে পাশের বাড়ি থেকে স্ত্রী উম্মে হাসনা দৌড়ে এসে স্বামীকে উদ্ধারের চেষ্টা করলে তাকেও জখম করে।
স্থানীয় লোকজন ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে আহতদেরকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে উখিয়া হাসপাতালে ভর্তি করে ।
আহত জাহাঙ্গীর আলম জানান , মহিষ চুরির ঘটনাকে কেন্দ্র করে থানায় পুলিশের সাহায্যে চাইতে গিয়ে সন্ত্রাসীরা আমাকে উল্টো হত্যার উদ্যোশে পরিকল্পিত ভাবে হামলা চালায় । শুধুতাই নই দোকানে মালামাল লুটপাট সহ ২ লাখ ৩০ হাজার টাকা ক্যাশ ড্রয়ার থেকে নিয়ে যায় ।
এ ব্যয়পারে উখিয়া থানায় ৫ জনকে আসামী করে এজাহার দায়ের করা হয়েছে বলে জানা গেছে ।

 
  
%d bloggers like this: