আবু সায়েম, কক্সবাজারঃ
কক্সবাজার দক্ষিণ বনবিভাগের আওতাধীন সদর উপজেলাধীন ঝিলংজা মৌজার ৮০০১ দাগের কলাতলী পুরাতন বিট সংলগ্ন এলাকার সংরক্ষিত বনভূমিতে ইটের ঘর নির্মাণের উদ্দেশ্যে জবরদখলের চেষ্টাকালে ৫ শতক বনভূমি জবরদখল মুক্ত করে উচ্ছেদ করা হয়েছে।
১৮ জুলাই( সোমবার) কক্সবাজার দক্ষিণ বনবিভাগের সহকারী বনসংরক্ষক ( সদর) শ্যামল কুমার ঘোষ এবং স্পেশাল টিমের ওসি সমীর রঞ্জন সাহার যৌথ নেতৃত্বে একদল বনকর্মীদের সহযোগিতায় কলাতলীর পুরাতন বিট সংলগ্ন এলাকায় ইটের ঘর নির্মাণের প্রাক্কালে অভিযান চালিয়ে ৫ শতক বনভূমি জবরদখল মুক্ত করে উচ্ছেদ করা হয়। এসময় ভূমিদস্যু ফরহাদ হোসেন( ৩৪) কে আটকপূর্বক আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।
স্পেশাল টিমের ওসি সমীর রঞ্জন সাহা বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে সরকারি বনভূমি জবরদখলের অপচেষ্টা প্রতিহত করা হয়। আটককৃত আসামি ফরহাদ মক্ষীরাণী খ্যাত জোবেদা ইয়াসমিনের মেয়ে সারিকা হোসেনের মেয়ের জামাই।
তিনি আরো বলেন,ইতোপূর্বে ২০ জানুয়ারি ২০২০ এবং ১৬ মে ২০২০ ইং তারিখে সংরক্ষিত বনভূমি জবরদখলকালে বিজ্ঞ আদালতে পৃথক ২ টি মামলা দায়ের করা হয়। যা আদালতে এখনো চলমান।
তিনি আরো বলেন, কলাতলী বিট সংলগ্ন এলাকায় ২ টি মামলা চলমান থাকার পরও ভূমিদস্যুরা আবারো বনভূমি জবরদখলের অপচেষ্টায় মেতে উঠেছে।। ভূমিদস্যুরা যতো বড় শক্তিশালী হোক না কেন তাদের বিরুদ্ধে যথাযথ আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
কক্সবাজার দক্ষিণ বনবিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা মোঃ সারওয়ার আলম বলেন,সরকারি বনভূমি উদ্ধারে বনবিভাগ সচেষ্ট রয়েছে। সরকারি জমিতে কেউ স্থাপনা নির্মাণ করলে উচ্ছেদ করা হবে এবং জবরদখল কারীদের বিরুদ্ধে অভিযান চালিয়ে বনভূমি রক্ষার্থে যথাযথ ভূমিকা পালন করবো। অভিযান চালিয়ে ভূমি জবরদখল এবং পাহাড়খেকোদের আইনের আওতায় আনা হবে। বন অপরাধ দমনে তথ্য দিয়ে সহযোগিতার আহ্বান জানান তিনি।

 
  
%d bloggers like this: