ইমাম খাইর, সিবিএন:
কক্সবাজার সমুদ্রসৈকতসহ বিভিন্ন পর্যটন স্পটে কর্মরত ফটোগ্রাফারদের দৌরাত্ম্য ঠেকাতে কঠোর হতে যাচ্ছে ট্যুরিস্ট পুলিশ। ডাটাবেইজ তৈরি, প্রশিক্ষণ, মূল্য তালিকা প্রণয়ন, আইডি কার্ড ও নির্ধারিত নাম্বারে পোষাক পরিধানসহ ১৩ টি সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। অবৈধ ফটোগ্রাফারদের প্রশ্রয় দাতাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের সিদ্ধান্তও নিয়েছে ট্যুরিস্ট পুলিশ। শীগ্রই তা বাস্তবায়নের কাজ শুরু হবে।
সমুদ্রসৈকতে কর্মরত ফটোগ্রাফারদের সাথে ট্যুরিস্ট পুলিশ কক্সবাজার রিজিয়নের মতবিনিময় সভায় সিদ্ধান্তগুলো নেওয়া হয়েছে।
ট্যুরিস্ট পুলিশ কক্সবাজার রিজিয়নের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. রেজাউল করিমের সভাপতিত্বে সোমবার (১৮ জুলাই) গৃহীত সিদ্ধান্তগুলো হলো,
১. যথাযথ কর্তৃপক্ষের অনুমোদন ছাড়া বিচে ফটোগ্রাফি করতে দেয়া হবেনা
২. অবৈধ ফটোগ্রাফারদের বিরুদ্ধে নিয়মিত অভিযান চালিয়ে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে
৩. কোন অবস্থাতেই ট্যুরিস্টদের সাথে ফটোগ্রাফাররা বিবাদে জড়াতে পারবেনা বা খারাপ আচরণ করতে পারবেনা
৩. ফটোগ্রাফার এবং ট্যুরিস্টদের মধ্যে মূল্য নিয়ে বা আচরণ নিয়ে কোন সমস্যা হলে সাথে সাথে ট্যুরিস্ট পুলিশকে জানাবে
৪. ফটোগ্রাফাররা কোন পর্যটককে ছবি তোলার ব্যাপারে প্রস্তাব বা অনুরোধ করতে পারবেনা, পর্যটকদের প্রয়োজন হলে তারা নিজেরাই ফটোগ্রাফারদের ডেকে নিবে
৫. ফটোগ্রাফাররা বীচ ম্যানেজমেন্ট কমিটি কর্তৃক প্রদত্ত আইডি কার্ড ও নির্ধারিত নাম্বারসহ পোষাক পরিধান করতে হবে
৬. ট্যুরিস্ট পুলিশ কক্সবাজার রিজিয়ন হতে বাছাই করে অভিজ্ঞ ও ট্যুরিস্ট বান্ধব ফটোগ্রাফার নির্বাচন করে ও তাদের পরিচয় নিশ্চিত হয়ে নিরাপদ ফটোগ্রাফার পরিচয় পত্র প্রদান করা হবে
৭. ট্যুরিস্ট পুলিশ কক্সবাজার রিজিয়ন একটি ডাটাবেইজ তৈরি করবে
৮. সিনিয়র ও দায়িত্বশীল ফটোগ্রাফারদের দিয়ে একটি কমিটি করে দেয়া হবে
৯. ফটোগ্রাফারদের সাথে বসে খুব শীঘ্রই একটি নতুন মূল্য তালিকা প্রণয়ন করা হবে
১০. অবৈধ ফটোগ্রাফারদের প্রশ্রয় দাতাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে
১১. বিচের প্রবেশ পথে কোন ফটোগ্রাফারকে দাঁড়াতে দেয়া হবেনা, এবং কোন ট্যুরিস্টকে ফলো করে তাদের ছবি তুলতে অনুরোধ করা যাবেনা
১২. প্রশিক্ষণবিহীন বা অভিজ্ঞতা ছাড়া কোন ফটোগ্রাফারকে বিচে ফটোগ্রাফি করতে দেয়া হবেনা
১৩. পর্যায়ক্রমে সকল ফটোগ্রাফারকে পর্যটকদের সাথে আচরণ ও কাস্টমার হ্যান্ডলিং বিষয়ে প্রশিক্ষণ প্রদান করা হবে
ট্যুরিস্ট পুলিশ কক্সবাজার রিজিয়নের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. রেজাউল করিম বলেন, ফটোগ্রাফারদের লাইসেন্স দেয় মূলত জেলা প্রশাসন। আমাদের কাছে কোনো ডাটাবেইজ থাকে না। যে কারণে অভিযোগ পেলেও দ্রুততম সময়ের মধ্যে ব্যবস্থা নেওয়া যায় না।
তিনি বলেন, পর্যটকদের হয়রানি রোধে ফটোগ্রাফারদের আলাদা ডাটাবেইজ করার উদ্যোগ নিয়েছি। সেখানে তাদের নাম ঠিকানাসহ প্রয়োজনীয় সব তথ্য থাকবে।
সুশৃঙ্খল ও সৌন্দর্যময় বীচ উপহার দিতে কাজ করে চলেছে ট্যুরিস্ট পুলিশ। ভ্রমণ আনন্দদায়ক ও নিরাপদ করতে সব ধরণের প্রচেষ্টা অব্যাহত থাকবে বলে জানান অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. রেজাউল করিম।

 
  
%d bloggers like this: