জালাল আহমদ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি:
১৬ জুন (২০২২) বৃহস্পতিবার বিকেলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নবাব নওয়াব আলী চৌধুরী সিনেট ভবনে বিশ্ববিদ্যালয়ের বার্ষিক সিনেট অধিবেশন অনুষ্ঠিত হয়।ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেটের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডক্টর মোহাম্মদ আখতারুজ্জামান অধিবেশনে সভাপতিত্ব করেন। অধিবেশনের শুরুতেই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও দেশবরেণ্য ব্যক্তিদের স্মরণে শোক প্রস্তাব করেন তিনি। তারপর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস, ঐতিহ্য, অর্জন ও আগামীর পরিকল্পনা নিয়ে অভিভাষণ প্রদান করেন তিনি।

অধিবেশনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০২২-২৩ অর্থবছরের বাজেট উপস্থাপন করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক মমতাজ উদ্দিন আহমেদ। এ বছরের মোট বাজেট ৯২২ কোটি ৪৮ লক্ষ টাকা।এর মধ্যে বেতন, ভাতা ও পেনশন বাবদ ৬৭১ কোটি ৯৪ লক্ষ টাকা যা মোট ব্যয়ের ৭২.৮৫% ; গবেষণা মঞ্জুরী বাবদ ১৫ কোটি ৫ লক্ষ টাকা যা মোট ব্যয়ের ১.৬৪%; অন্যান্য অনুদান বাবদ ৩৩ কোটি ৫৪ লক্ষ যা মোট ব্যয়ের ৩.৬৪%; পণ্য ও সেবা বাবদ ১৭৯ কোটি ৯৯ লক্ষ ৮ হাজার টাকা যা মোট ব্যয়ের ১৯.৫২% এবং মূলধন খাতে ২১ কোটি ৯৫ লক্ষ ৯২ হাজার টাকা যা মোট ব্যয়ের ২.৩৯%।
এর মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন থেকে পাওয়া যাবে ৭৮১ কোটি ৯৪ লক্ষ টাকা, বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব আয় ধরা হয়েছে ৮৩ কোটি টাকা এবং ঘাটতির পরিমাণ দাঁড়াবে ৫৭ কোটি ৫৪ লক্ষ টাকা যা প্রাক্কালিত ব্যয়ের ৬.২৪%।

গত ২০২১-২২ অর্থবছরের মোট বাজেট ছিল ৮৩১ কোটি ৭৯ লক্ষ টাকা। গতবারের তুলনায় এবার বরাদ্দ ৯০ কোটি টাকা বেশি।

সিনেট সদস্য ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টেলিভিশন, ফিল্ম এন্ড ফটোগ্রাফি বিভাগের অধ্যাপক আ জ ম শফিউল আলম ভূঁইয়া ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক সমস্যা সমাধানের জন্য পূর্বাচলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রস্তাবিত ক্যাম্পাসে শিক্ষার্থীদের সুবিধার্থে আবাসিক হল নির্মাণের দাবি জানিয়েছেন।ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় মেডিকেল সেন্টারের সুযোগ সুবিধা বৃদ্ধি করার জন্য প্রস্তাব দেন। গবেষণা খাতে কম বরাদ্দ দেওয়ার বিষয়টি “লজ্জার” বলে তিনি জানান।
সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডীন এবং সিনেট সদস্য অধ্যাপক ডঃ জিয়াউর রহমান করোনা মহামারী থেকে শিক্ষা নিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় মেডিকেল সেন্টারের আধুনিকায়নের দাবি জানান। প্রয়োজনে মেডিকেল সেন্টারের উন্নয়নের জন্য বাজেট সংশোধন করার অনুরোধ করেন।
উদ্ভিদ বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক, জগন্নাথ হলের প্রভোস্ট এবং সিনেট সদস্য অধ্যাপক ড: মিহির লাল সাহা বলেন, শব্দ দূষণের জন্য রোকেয়া হল, শামসুন্নাহার হল সহ বিভিন্ন হলের শিক্ষার্থীরা ভালো করে পড়াশোনা করতে পারে না।
শব্দ দূষণ রোধে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য তিনি আহ্বান জানান। বিশ্ববিদ্যালয়ের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে দ্রুত পদক্ষেপ নেয়ার অনুরোধ করেন তিনি।
নুরের বর্জন এবং সাদ্দাম- তিলোত্তমার আগমন:
ডাকসুর সদ্য সাবেক ভিপি এবং সিনেটে ছাত্র প্রতিনিধি নুরুল হক নুর এবারের সিনেটে বাজেট অধিবেশন বর্জনের ঘোষণা দেন। তিনি তার ফেসবুক স্ট্যাটাসে এই বিষয়ে বলেন, “ডাকসু বিহীন ডাকসুর প্রতিনিধি হয়ে সিনেটের কার্যক্রমে অংশগ্রহণ করা নৈতিকতা বিরোধী।যে কারণে গত ১ বছর সিনেট সদস্য হিসেবে বিভিন্ন মিটিংয়ে আমন্ত্রণ পেলেও আমি সেসব মিটিংয়ে অংশ নেইনি। আগামীকালকের বাজেট অধিবেশনেও অংশ নিচ্ছি না।
অনতিবিলম্বে ডাকসু নির্বাচন দিয়ে সিনেটে শিক্ষার্থীদের প্রতিনিধি নিশ্চিত করা হোক।
ভালো থাকুক ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়,ভালো থাকুক দেশ।
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ভালো থাকলে ভালো থাকবে দেশ”।

নুরুল হক নুর সিনেট অধিবেশন বর্জন করলেও ছাত্র প্রতিনিধি হিসেবে সিনেট অধিবেশনে যোগদান করেছেন ডাকসুর সাবেক এজিএস ছাত্রলীগ নেতা সাদ্দাম হোসেন এবং সাবেক সদস্য তিলোত্তমা শিকদার।

এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত (সন্ধ্যা সাড়ে সাতটা)ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেট অধিবেশন চলছে।

 
  
%d bloggers like this: