প্রেস বিজ্ঞপ্তি :

শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী বলেছেন, কক্সবাজার ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি থেকে অতীতে যারা অর্থ আত্মসাৎ করেছে, দুর্নীতি করেছে, তাদের আইনের আওতায় আনা হবে। তাদের শাস্তি ভোগ করতে হবে। তিনি বলেন, ইতোমধ্যে ঢাকার একটি নামকরা বেসরকারী বিশ^বিদ্যালয়ের বোর্ড অব ট্রাস্টিজের ৪ জন সদস্যের বিরুদ্ধে দুর্নীতি প্রমাণিত হওয়ায়, তাদেরকে জেলে পাঠানো হয়েছে।

তিনি ১৫ জুন’২২ বুধবার দুপুরে কক্সবাজার ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে অনির্ধারিত পরিদর্শনে এসে এ কথা বলেন।

সভায় স্বাগত বক্তব্য দেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা ও বোর্ড অব ট্রাস্টিজের চেয়ারম্যান জননেতা সালাহউদ্দিন আহমদ সিআইপি। তিনি বলেন, এই বিশ^বিদ্যালয় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার দেয়া কক্সবাজারবাসীর জন্য একটি উপহার।

তিনি আরো বলেন, শিক্ষা-দীক্ষায় পিছিয়ে থাকা কক্সবাজারের সন্তানদের মানসম্মত উচ্চ শিক্ষার পথ সুগম করার লক্ষ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের বর্তমান বোর্ড অব ট্রাস্টিজ অত্যন্ত আন্তরিক ও এ লক্ষ্যে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে উপাচার্য প্রফেসর ড. গোলাম কিবরিয়া ভূইয়ার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত ও বোর্ড অব ট্রাস্টিজের সেক্রেটারি প্রফেসর এ কে এম গিয়াসউদ্দিনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভায় আরো বক্তব্য রাখেন কক্সবাজার-রামু সংসদীয় এলাকার সাংসদ সাইমুম সরোয়ার কমল।

শিক্ষা উপমন্ত্রী আরো বলেন, কক্সবাজার ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি এতদাঞ্চলের একমাত্র বিশ্ববিদ্যালয়। এই বিশ্ববিদ্যালয়কে একটি মানসম্মত বিশ্ববিদ্যালয়ে উন্নীত করতে হবে। এজন্য সরকারি তরফে প্রয়োজনীয় সহায়তা দেওয়া হবে।

তিনি বলেন, অচিরেই বিশ্ববিদ্যালয়কে নিজস্ব স্থায়ী ক্যাম্পাসে যেতে হবে।
এর আগে তিনি বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস ঘুরে দেখেন এবং প্রয়োজনীয় পরামর্শ দেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, বোর্ড অব ট্রাস্টিজের সদস্য ও সাবেক সাংসদ অধ্যাপিকা এথিন রাখাইন, জেলা যুবলীগ সভাপতি সোহেল আহমদ বাহাদুর, জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি সাদ্দাম হোসেন, জেলা যুব মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আয়েশা সিরাজ, বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীবৃন্দ।

 
  
%d bloggers like this: