চকরিয়া সংবাদদাতা:

মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে সরকারীভাবে দেওয়া ভূমিহীন ঘর পাইয়ে দেওয়ার নামে টাকা আত্মসাৎ  মামলার ২নং আসামী পার্বত্য লামার ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়ন আ’লীগের সহ-সভাপতি ও চকরিয়াস্হ মালুমঘাট বাজার ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি মনজুর আলমের জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নিদের্শ দেন আদালত।

মঙ্গলবার (১৪ জুন) দুপুরে লামার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালত এ নিদের্শ দেন। যার সি,আর মামলা নং-২৫/২২ইং।

জামিন নামঞ্জুরের বিষয়টি নিশ্চিত করেন,বাদী পক্ষের এ্যাভোকেট মোঃ রাকিব।

মামলার বাদী জাকারিয়া জানিয়েছেন,কারাগারে যাওয়া বয়স্ক মুরব্বী মনজুর আলমের ছেলে শাহ আজম ফাঁসিয়াখালী ইউপির হায়দারনাশী এলাকার গরীব,অসহায় লোক বা বিধবা মহিলাদের ফুসলিয়ে সরকারী ভূমিহীন ঘর দেওয়ার নামে ৬জন থেকে মোটা অংকের টাকা আত্মসাৎ করেছে।এতে ঘর না পেয়ে ছেলের পিতা মনজুরকেও আসামী করা হয়।পরে মামলাটি তদন্ত দিলে স্হানীয় গ্রামীণ আদালত ঘটনার সত্যতা নিরুপনে প্রতিবেদন দেন।পরে মনজুর বিষয়টি নিয়ে আবারো চেয়ারম্যানের শরণাপন্ন হয়।তখন চেয়ারম্যান,মেম্বার ও সমাজের গণ্যমান্য ব্যক্তিরা একটি সমাধান দেন।আমরা ভূক্তভোগিরা মেনে নিই।তখন আসামী পক্ষ চেয়ারম্যান মহোদয়ের কাছে কিছু টাকা ফেরত দেওয়ার জন্য জমা দেন।বাকী টাকা জমা দিলেই,মামলা আপোষ দেওয়ার কথা ছিল।এর ফাঁকে আমাদের অজান্তে মনজুর আলম আদালতে জামিন নিতে গেলে,আদালত জামিন নামঞ্জুর করেন।ফলে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে বলে  আমার মামলার  এ্যাভোকেট রাকিব জানিয়েছেন। তাছাড়া আমি মহেশখালীর মাতারবাড়ীতে দীর্ঘ এক সপ্তাহে ধরে মাইকিং করায় ব্যস্ত আছি।

 
  
%d bloggers like this: