জালাল আহমদ,ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি:
ভারতের ক্ষমতাসীন দল ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি)’র মুখপাত্র নূপুর শর্মা এবং দিল্লীর মিডিয়া শাখার প্রধান নবীন জিন্দাল এর আলাদা বক্তব্যে বিশ্বনবী হযরত মুহম্মদ (সা:) বিরুদ্ধে কটুক্তিমূলক মন্তব্যের প্রতিবাদে আজ‌ ৯ জুন(২০২২) বৃহস্পতিবার দুপুর একটার দিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে বিক্ষোভ সমাবেশ ও মিছিল বের করেছে চরমোনাই পীরের সংগঠন খ্যাত ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ এর ছাত্র সংগঠন ইসলামী ছাত্র আন্দোলন বাংলাদেশ।

সংগঠনের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ইয়াসিন আরাফাত সভাপতিত্বে এবং সাংগঠনিক সম্পাদক মোহাম্মদ মহিব‌ উল্লাহ এর সঞ্চালনায় আয়োজিত এই বিক্ষোভ সমাবেশে ইসলামী ছাত্র আন্দোলন বাংলাদেশ এর কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি শরিফুল ইসলাম রিয়াদ বলেছেন, ভারতের ক্ষমতাসীন দল ভারতীয় জনতা পার্টির মুখপাত্র নূপুর শর্মা এবং দিল্লী মিডিয়া শাখার প্রধান নবীন জিন্দাল এর কটুক্তিমূলক বক্তব্য আমাদের হৃদয়ের কলিজায় আঘাত করেছে। তারা ভারতের মুসলমানদের উপর নির্যাতন চালিয়ে যাচ্ছে।তারা মুসলমানদের রক্ত নিয়ে হোলি খেলায় মেতে উঠেছে। তাদের কাছে গরুর রক্তের মূল্য আছে। কিন্তু মুসলমান রক্তের কোন মূল্য নাই। ভারতে মুসলিমরা ৬৫০ বছর শাসন করেছে। মুসলিম শাসকেরা উগ্রবাদী হলে ভারতে একজন হিন্দুও পাওয়া যেত না।
ইসলাম একটি আদর্শ ধর্ম ।এটা নিয়ে কটুক্তি করলে আমরা সহ্য করব না।
বাংলাদেশ সরকারের নীরবতা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার সব কিছু জেনেও মুখে কুলুপ এঁটে বসে আছে।
বাংলাদেশের মানুষ ভারত বিরোধী নয়। বিজেপি বিরোধী। কারণ বিজেপি সাম্প্রদায়িক রাজনীতিতে বিশ্বাসী। অবিলম্বে ভারতীয় জনতা পার্টির মুখপাত্র নূপুর শর্মা এবং দিল্লী মিডিয়া শাখার প্রধান নবীন জিন্দাল এর কটুক্তিমূলক বক্তব্যের বিরুদ্ধে জাতীয় সংসদে নিন্দা প্রস্তাব পাস করুন।
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রসঙ্গ টেনে তিনি বলেন,ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে কার্ল মার্ক্স চর্চা হলে,লেলিন চর্চা করতে পারলে, বঙ্গবন্ধু চর্চা হলে ইসলামের চর্চা হবে না কেন?

সংগঠনের কেন্দ্রীয় কমিটির পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় বিষয়ক সম্পাদক মাহবুবুর রহমান বলেছেন,বিশ্ব নবী হযরত মুহম্মদ ( সা:) শুধু ইসলামের প্রচারক ছিলেন না, তিনি ছিলেন একজন সমাজ সংস্কারক। সেই মহামানব হযরত মুহম্মদ (সা:) এর বিরুদ্ধে কটুক্তিমূলক মন্তব্য শুনে আজ আমাদের হৃদয়ে রক্তক্ষরণ হচ্ছে ‌‌।
তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি প্রশ্ন রেখে বলেন, আপনি বাংলাদেশের মানুষের পক্ষে
রাজনীতি করেন নাকি ভারতের ক্ষমতাসীন দল ভারতীয় জনতা পার্টির পক্ষে রাজনীতি করেন? যদি বাংলাদেশের মানুষের পক্ষে রাজনীতি করেন, তাহলে বাংলাদেশের জনগণের স্বার্থে
সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির বন্ধন অটুট রাখতে এই কটুক্তিমূলক বক্তব্যের প্রতিবাদ করতে হবে।
বিক্ষোভ সমাবেশ শেষে রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশ থেকে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করে সংগঠনের নেতাকর্মীরা। মিছিলটি শহীদ মিনারে গিয়ে মোনাজাতের মাধ্যমে শেষ হয়। এ সময় সংগঠনের শতাধিক নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।

 
  
%d bloggers like this: