অনলাইন ডেস্ক:

এক অশনি না যেতেই আসছে তার দোসর ‘করিম’ ঘূর্ণিঝড়!  এটি  তৈরি হয়েছে ভারত মহাসাগরে। দেশটির দক্ষিণে একটি নতুন ঘূর্ণিঝড় জন্ম নিয়েছে বলে জানিয়েছে নাসা। ভারত মহাসাগরের উত্তর এবং দক্ষিণে ওই জোড়া ঘূর্ণিঝড়ের ছবি নাসার উপগ্রহ চিত্রে ধরা পড়েছে গত রবিবার। ‘আসানি’র পাশাপাশি অন্য যে ঘূর্ণিঝড়ের ছবি নাসা তুলেছে সেটির নাম ‘করিম’।

গত সপ্তাহ থেকেই আন্দামান সাগরে সৃষ্টি হতে থাকে অশনি ঘূর্ণিঝড়টি। পরবর্তীতে, এটি বঙ্গোপসাগরের উপর দিয়ে ধীরে ধীরে অগ্রসর হতে হতে বর্তমানে উড়িষ্যায় আছড়ে পড়েছে। এর প্রভাবে উড়িষ্যা, অন্ধ্র প্রদেশ এবং পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন প্রান্তে গত দুদিন ধরে মাঝারি থেকে ভারি বৃষ্টিপাত হয়ে চলেছে। যদিও ঘূর্ণিঝড় সৃষ্টি হওয়ার মুহূর্তে যে পরিমাণ ক্ষয়ক্ষতির আশঙ্কা করা হয়েছিল, তার থেকে পরিস্থিতি বর্তমানে অনেকাংশে ভালো রয়েছে;

আবহাওয়া সূত্রের খবর, উড়িষ্যা উপকূলে যাওয়ার মুহূর্তে অশনি তার শক্তি হারায় এবং সেই কারণেই দুর্যোগের সম্ভাবনা কিছুটা হলেও কমে যায়। তবে আগামী দু’দিনের বেশ কিছু অঞ্চলে ঝোড়ো হাওয়ার সাথে মাঝারি থেকে ভারি বৃষ্টিপাত হবে বলে জানিয়েছে হাওয়া অফিস। আর এবার অশনি চলাকালীন আবারও এক নতুন সাইক্লোনের সৃষ্টি হতে চলেছে বলে জানা যাচ্ছে। হাওয়া অফিস সূত্রে খবর, ভারত মহাসাগরে তৈরি হতে চলেছে করিম নামের এক ভয়ঙ্কর সাইক্লোনের। এই সপ্তাহের শেষে ঘূর্ণিঝড়টি আরো মারাত্মক রূপ নিতে চলেছে বলে খবর।

যদিও এর প্রভাবে উপকূলের সকল রাজ্যগুলিতে ঠিক কতটা মারাত্মক প্রভাব পড়তে চলেছে, তা সম্বন্ধে কোনো নির্দিষ্ট খবর দিতে পারেনি হাওয়া অফিস। তবে জানা যাচ্ছে, ঘূর্ণিঝড়টির গতিবেগ হতে চলেছে 112 কিলোমিটার প্রতি ঘন্টা এবং স্থলভাগে আছড়ে পড়ার সময় এর গতিবেগ থাকবে প্রতি ঘন্টায় 140 কিলোমিটার। ইতিমধ্যেই 13 ই মের পর থেকে মৎস্যজীবীদের সমুদ্রের যাওয়া থেকেও বারণ করা হয়েছে। এখন শেষ পর্যন্ত এই সাইক্লোনের রূপ কতটা ভয়ঙ্কর হয়, তা সময়ই বলবে।