প্রেস বিজ্ঞপ্তি:
বঙ্গবন্ধুর ঘনিষ্ঠ সহচর, কক্সবাজার পৌর সভার ১ম নির্বাচিত চেয়ারম্যান, জেলা আওয়ামী লীগের আমরণ সভাপতি, প্রয়াত জননেতা বীর মুক্তিযোদ্ধা এ.কে. এম মোজাম্মেল হকের ১৭ তম মৃত্যু বার্ষিকী উপলক্ষে ১০ মে মঙ্গলবার দিনব্যাপী কক্সবাজার পৌর ও সদর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের উদ্যোগে বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করা হয়। কর্মসূচির মধ্যে ছিল সকাল ৯ টায় জেলা আওয়ামীলীগ কার্যালয়ে খতমে কোরআন, মিলাদ ও দোয়া মাহফিল, সকাল ১০ টায় প্রয়াত নেতার প্রতিকৃতিতে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ। সকাল ১১ টায় জেলা আওয়ামীলীগ কার্যালয়ে মরহুমের বর্ণাঢ্য জীবনের উপর আলোচনা সভা।কক্সবাজার শহর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি আবদুর রহমানের সভাপতিত্বে
ও সাধারণ সম্পাদক এম. ওসমান সরওয়ার আলম চৌধুরীর পরিচালনায় অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেব উপস্থিত ছিলেন কক্সবাজার জেলা আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি জনাব রহিম উদ্দিন। এই সময় উপস্থিত ছিলেন মরহুমের কনিষ্ঠ সন্তান, কক্সবাজার জেলা আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক ও কক্সবাজার সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান জননেতা কায়সারুল হক জুয়েল। এ সময় মরহুমের বর্নাঢ্য রাজনৈতিক জীবনের উপর স্মৃতিচারণ করেন, জেলা আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের সহ- সভাপতি বখতিয়ার আলম চৌধুরী, এড. একরামুল হুদা পিপি, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক জয়নাল আবেদিন, কৃষি বিষয়ক সম্পাদক হাজী জসিম উদ্দিন ছিদ্দিকী, যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক মোহাম্মদ মোস্তফা, সদর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ সাধারণ সম্পাদক সরওয়ার আলম চৌধুরী, উখিয়া সাধারণ সম্পাদক স্বপন শর্মা রনি, সদর সহসভাপতি নুরুল কবির খান, শহর সাংগঠনিক সম্পাদক মোহাম্মদ আলী ছোটন, সদর সাংগঠনিক সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম, শহর স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা মোহাম্মদ হানিফ, গিয়াস উদ্দিন, মোহাম্মদ আবদুল্লাহ, সদর স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা আবদুল কাদের, মোহাম্মদ ইদ্রিস, ওয়ার্ড স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা মুবিনুল হক মুন্না, মোহাম্মদ ছিদ্দিক,মুজিবুল হক মুজিব, আবদুল মান্নান, জসিম উদ্দিন, জয়নাল আবেদিন, সাইফুল ইসলাম নবাব,জাহাঙ্গীর আলম, জিয়াউর রহমান, কক্সবাজার সদরের ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা হেলাল উদ্দীন, তারেক আরমান, রবিউল আলম, এড. জসিম উদ্দিন, ফরিদুল আলম, মাহবুবুল আলম মাবু, বাদল, মুসলেহ উদ্দীন, শওকত আলম, রাজাপালং ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক লীগের আহবায়ক জয়নাল আবেদিন, নুর মোহাম্মদ শেখর প্রমুখ।
সভায় বক্তারা বলেন, মরহুম একেএম মোজাম্মেল হক ছিলেন কক্সবাজার জেলা আওয়ামী নেতা-কর্মীদের নিরাপদ আশ্রয় স্থল। তিনি সমস্ত লোভের উর্ধ্বে ছিলেন। বিরোধী দলের আমলে নির্যাতিত,মিথ্যা মামলায় ক্ষতিগ্রস্ত নেতা-কর্মীদের শেষ ঠিকানা ছিল তাঁর বাসভবন হকশন।তিনি কখনো অপ-রাজনীতি করেননি, দখলবাজি ও চাঁদাবাজি করেননি, কোন অন্যায়কে প্রশ্রয় দেননি। তিনি আমৃত্যু আওয়ামীলীগের জন্য নিজের জীবন বিলিয়ে দিয়েছেন। তিনি ছিলেন কক্সবাজার আওয়ামী রাজনীতির বটবৃক্ষ। আলোচনা সভা শেষে নেতা-কর্মীরা কক্সবাজার নতুন বাহারছড়াস্থ কবর স্থানে মরহুমের কবর জিয়ারত করেন।