মোঃ আরাফাত সানি:

টেকনাফে প্রচণ্ড খরতাপ,অন্যদিকে বিদ্যুতের ঘনঘন লোডশেডিং,এ নিয়ে অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে টেকনাফবাসী। সরকারের হিসাব মতে দেশে কোন বিদ্যুতের ঘাটতি নেই এবং পবিত্র রমজান উপলক্ষে অতিরিক্ত বিদ্যুৎ সরবরাহ বাড়িয়ে দিয়েছে কতৃপক্ষ।এরপরও রমজান আসতে না আসতেই টেকনাফ উপজেলায় লোডশেডিংয়ের মাত্রা বেড়েই চলেছে,ফলে নামাজিরা মসজিদে নামাজ পড়তে গিয়ে অতিরিক্ত তাপমাত্রার কারণে প্রাণবায়ু বের হওয়ার উপক্রম হয়ে পড়েছে। ঘনঘন লোডশেডিংয়ের বিষয়ে টেকনাফ পল্লী বিদুৎ সমিতির কন্ট্রোল রুমের ( ০১৭৬৯…..০৫২ )এই নাম্বারে বার বার কল দিলেও রিসিভ করে না।

সকাল হতে না হতেই সূর্যের তাপমাত্রা বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে সময়-অসময়ে দেখা দিচ্ছে পল্লী বিদ্যুৎ অফিসের কর্মকর্তা- কর্মচারীদের সাজানো ও কথিত বিদ্যুৎ সঞ্চালনের লাইনে ত্রুটি। বিতরণ ও সঞ্চালন ব্যবস্থার ত্রুটির কারণে সাধারণ মানুষকে দুঃসহ গরমে দিন-রাত পোহাতে হচ্ছে লোডশেডিংয়ের তীব্র যন্ত্রণা। এমনকি ইফতার,সেহেরী ও নামাজের সময়ে বিদ্যুৎ থাকে না। বর্তমানে বিনা অজুহাতে বিদ্যুৎ না থাকায় মানুষ অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে। না ঝড় না বৃষ্টি,তবু ঘণ্টার পর ঘণ্টা বিদ্যুৎ থাকে না।

এ অবস্থা শুরু হয়েছে টেকনাফ জোনাল অফিসসহ বিভিন্ন অফিসের আওতাধীন এলাকায়। অভিযোগ উঠেছে টেকনাফ জোনাল অফিসসহ বিভিন্ন অফিসের কর্মকর্তাদের উদাসীনতার কারণে এমন পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। টেকনাফ উপজেলায় বিদ্যুৎ নিয়ে চলছে নানান নাটকীয়তা।

এ দিকে পল্লী বিদুৎ অফিস সুত্রে জানায়,এই পবিত্র রমজান মাস ও গরমের কারনে স্বাভাবিক ভাবেই বাসাবাড়ি,দোকান, মসজিদ,টমটম গ্যারেজে,এবং সেচের পাম্পের লোড অনেক বেড়ে যায়। সেই সাথে অনেক বাসায় চুক্তি বদ্ধ লোডের বাইরে এসি, ফ্রিজ গুলো চালু থাকে যার কারনে অন্য সময়ের তুলনায় সন্ধ্যা থেকে মধ্য রাত পর্যন্ত লোড সর্বোচ্চ থাকে।সেক্ষেত্রে পিজিসিবি নিয়ন্ত্রনাধীন কক্সবাজার গ্রীডের টি-৩ ট্রান্সফরমার ওভারলোডেড হয়ে যায়। তাই কিছু কিছু এলাকায় পর্যায়ক্রমে লোডশেডিং করা হচ্ছে।

এদিকে তীব্র গরমের মধ্যে বিদ্যুতের লোডশেডিংয়ের কারণে অফিস-আদালতেও স্বাভাবিক কাজকর্ম ব্যাহত হচ্ছে। কল-কারখানায় ব্যাহত হচ্ছে উৎপাদন। দিন রাতে কমপক্ষে ৮ থেকে ১০ বার বিদ্যুৎ আসা-যাওয়া করছে।

এ বিষয়ে মুঠোফোনে টেকনাফ পল্লী বিদুৎ জোনাল ম্যানেজার আবুল বাশার আজাদের সাথে বারবার যোগাযোগ করা হলে ০১৭৬৯…..২৪ মোবাইল সংযোগ না পাওয়ায় বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি

এ বিষয়ে কক্সবাজার পল্লী বিদুৎ সমিতির জেনারেল ম্যানেজার আক্তারুজ্জামান লস্করের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, আমি নামাজে পরে কল দেব।

 
  
%d bloggers like this: