অনলাইন ডেস্ক: রাজধানীর ফার্মগেট এলাকায় গত শনিবার তেজগাঁও কলেজের এক শিক্ষিকাকে টিপ পরার কারণে গালি দিয়ে হামলা চালানোর অভিযোগ পাওয়া গেছে। খোদ পুলিশের পোশাক পরা এক ব্যক্তির বিরুদ্ধেই অভিযোগ করেছেন ভুক্তভোগী। তিনি তেজগাঁও কলেজের থিয়েটার অ্যান্ড মিডিয়া স্টাডিজ বিভাগের প্রভাষক লতা সমাদ্দার।

লতা সমাদ্দার আরো অভিযোগ করেন, সেই সময় তিনি প্রতিবাদ জানালে তার গায়ের ওপর দিয়ে মোটরসাইকেল চালিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করেন পুলিশের পোশাক পরা ওই ব্যক্তি।

এদিকে ঘটনার তদন্ত শুরু হলেও অভিযুক্ত ব্যক্তিকে শনাক্ত করতে পারেনি পুলিশ। দায়িত্বশীল কর্মকর্তারা বলছেন, পোশাক পরিহিত থাকার বর্ণনা এবং সিসি ক্যামেরার ফুটেজসহ বিভিন্ন আলামতে নিশ্চিত হওয়া গেছে অভিযুক্ত ব্যক্তি পুলিশ সদস্য। তবে নাম, মোটরসাইকেলের সম্পূর্ণ নম্বরসহ সুর্নিদিষ্ট কোনো তথ্য না থাকায় অভিযুক্তকে শনাক্ত করতে সময় লাগছে। তবে যে কোনো সময় অভিযুক্ত ধরা পড়বে বলে আশা প্রকাশ করেছেন তারা।

পুলিশের তেজগাঁও বিভাগের উপকমিশনার (ডিসি) বিপ্লব কুমার সরকার কালের কণ্ঠকে বলেন, আমরা অত্যন্ত গুরুত্ব সহকারের ঘটনার তদন্ত করছি। সংশ্লিষ্ট সবাই দিনরাত কাজ করছে। শিক্ষিকা অভিযুক্ত ব্যক্তির নাম জানাতে পারেননি। মোটারসাইকেলটির আংশিক নম্বর দিয়েছেন। এসব কারণে দেরি হচ্ছে। তবে বিভিন্নভাবে আমরা এখন পর্যন্ত বলতে পারি অভিযুক্ত ব্যক্তি পুলিশ সদস্যই। তদন্তে বাকিটা নিশ্চিত হওয়া যাবে। ’

এদিকে ঘটনা জানাজানি হলে শনিবার রাত থেকেই ফেসবুকে প্রতিবাদের ঝড় তোলেন নেটিজেনরা। অনেক নারী টিপ পরা ছবি পোস্ট করে ঘটনার তদন্ত এবং দ্রুত বিচারের দাবি জানিয়েছেন। অনেক পুরুষও টিপ পড়ে ফেসবুকে ছবি দিয়ে প্রতিবাদ জানিয়েছেন।

ঘটনায় গভীর উদ্বেগ, তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ। ওই ঘটনার সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ তদন্ত সাপেক্ষে অভিযুক্তকে শনাক্ত করে আইনের আওতায় উপযুক্ত শাস্তির দাবিও করেছে সংগঠনটি।
-কালেরকন্ঠ

 
  
%d bloggers like this: