প্রেস বিজ্ঞপ্তিঃ

বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্য দিয়ে পালং মেডিকেল ইনস্টিটিউটে ৫১ তম মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উদপান করা হয়েছে।
২৬ মার্চ ভোরে র‌্যালির মাধ্যমে শহীদ মিনারে পুস্পার্পনের মধ্যদিয়ে দিবসটির সূচনা করা হয়।
দিন ব্যাপী আয়োজনের মধ্যে ছিল, র‌্যালি, আলোচনা সভা, শিক্ষার্থী ও শিক্ষকদের বিভিন্ন ইভেন্টের খেলাধুলা, সমবেত কন্ঠে জাতীয় সংগীত পরিবেশনসহ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।
বিভাগীয় প্রধান প্রভাষক শুভংকর বড়ুয়ার সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন, পালং মেডিকেল ইনস্টিটিউট’র চেয়ারম্যান মুহাম্মদ ছলিম উল্লাহ সুজন।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন,প্রাক্তন ছাত্রলীগ উখিয়া উপজেলার সভাপতি মাহাবুবুল আলম মাহাবুব। প্রধান বক্তা ছিলেন বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ অধ্যাপক রনজিত বড়ুয়া। বিশেষ অতিথি ছিলেন, প্রাক্তন ছাত্রলীগ উখিয়া উপজেলার সাধারণ সম্পাদক সোলতান মাহমুদ চৌধুরী ও ফ্যাশন ডিজাইনার বাবু শংকর বড়ুয়া।
শুরুতে পবিত্র কোরআন তেলাওয়াত করেন নার্সিং ১ম বর্ষের ছাত্রী মুনতাহেনা, গীতাপাঠ করেন সিপি ১ম বর্ষের ছাত্রী পিংকী রানী শীল, ত্রিপিটক পাঠকরেন সিপি ১ম বর্ষের ছাত্রী রেনি বড়ুয়া।
বক্তারা বলেন, ১৯৭১ সালের ২৬ মার্চ স্বাধীনতা ঘোষণার মধ্য দিয়ে রচিত হয়েছিল বাংলাদেশ নামের একটি স্বাধীন ভূ-খণ্ডের। এটি বাঙালি জাতির জীবনে অনন্য একটি দিন।
সামনে এগিয়ে যাওয়ার প্রেরণা জোগায় দিনটি।
বক্তারা আরও বলেন, সবার সম্মিলিত প্রচেষ্টায় অর্জিত হয়েছিলো স্বাধীনতা, তাই মহান এই অর্জনকে ঐক্যবদ্ধভাবেই রক্ষা করতে হবে। বঙ্গবন্ধুর দেখানো আদর্শ বুকে ধারণ করে দেশপ্রেমের মাধ্যমে সোনার বাংলা বিনির্মাণে আমাদের সকলকে উন্নয়ন কর্মকাণ্ডে আত্মনিয়োগ করতে হবে। সত্যিকার অর্থে দেশকে ভালোবাসতে পারলে তবেই বীর মুক্তিযোদ্ধাদের আত্মত্যাগের মর্যাদা অক্ষুন্ন থাকবে।
শিক্ষক/শিক্ষিকা ও কর্মকর্তাদের মধ্যে উপস্হিত ছিলেন, ইসলাম মাহমুদ, ডাঃ শামীম নেওয়াজ বাপ্পা, শিখা ছিদ্দিকী, শফিকুর রহমান, মন্জিলা খাতুন, সোমা আক্তার, দিপ্তী দে, ডাঃ ফিরোজ মাহমুদ, নুরুল আবছার, ইমরান হোসেন রুবেল প্রমুখ।

 
  
%d bloggers like this: