অনলাইন ডেস্ক: করোনা মহামারীর মধ্যেও বাংলাদেশে সুখ বেড়েছে। আর এ সুখের খবর দিয়েছে জাতিসংঘের ওয়ার্ল্ড হ্যাপিনেস রিপোর্ট। এ বার্ষিক প্রতিবেদন বলছে, ২০২১ সালে সুখ বেড়েছে বাংলাদেশের মানুষের মনে।

২০ মার্চ বিশ্ব সুখ দিবস সামনে রেখে শুক্রবার ১০ম বারের মতো প্রকাশিত এ প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে জাতিসংঘের সাসটেইনেবল ডেভেলপমেন্ট নেটওয়ার্ক (এসডিএসএন)। এতে বিশ্বের সুখী দেশের তালিকায় সাত ধাপ এগিয়েছে বাংলাদেশ।

২০২২ সালের তালিকায় বাংলাদেশের অবস্থান এখন ৯৪তম। গত বছর এ তালিকায় ১০১তম ছিল দেশটি। ২০২০ সালে বাংলাদেশ ছিল ১০৭তম আর ২০১৯ সালে ১২৫তম।

তালিকায় টানা পঞ্চমবার সবচেয়ে সুখী দেশ নির্বাচিত হয়েছে ফিনল্যান্ড।

বার্ষিক এই প্রতিবেদনে এ বছর ১৪৬টি দেশের নাম অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। দেশগুলোর মানুষকে বিভিন্ন প্রশ্নের মাধ্যমে তাদের সুখ পরিমাপ করা হয়েছে। আর সুখের পরিমাপক হিসেবে দেশটির সামাজিক সুযোগ-সুবিধা, সামাজিক উদারতা, ব্যক্তিগত স্বাধীনতা, জিডিপি, গড় আয়ু এবং দুর্নীতির মাত্রা বিষয়গুলোকে সামনে রাখা হয়। এতে শূন্য থেকে ১০ পর্যন্ত পয়েন্ট দিয়ে সুখের পরিমাণ বোঝানো হয়েছে। তালিকায় ২০২১ সালে ৫ দশমিক ১৫৫ পয়েন্ট নিয়ে ৯৪তম হয়েছে বাংলাদেশ।

সূচকে ২ দশমিক ৪০৪ পয়েন্ট নিয়ে এ তালিকার সবচেয়ে অসুখী দেশ আফগানিস্তান। আর পরের চারটি দেশ হলো- লেবানন, জিম্বাবুয়ে, রুয়ান্ডা ও বতসোয়ানা।

দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে বাংলাদেশের চেয়ে বেশি সুখে আছে নেপাল। দেশটির স্কোর ৫ দশমিক ৩৭৭। এ তালিকায় পাকিস্তান ৪ দশমিক ৫১৬ স্কোর নিয়ে ১২১তম, ৪ দশমিক ৩৯৪ স্কোর নিয়ে মিয়ানমার ১২৬ তম, ৪ দশমিক ৩৬২ স্কোর নিয়ে শ্রীলঙ্কা ১২৭তম এবং ৩ দশমিক ৭৭৭ স্কোর নিয়ে ভারত ১৩৬ তম অবস্থানে রয়েছে।