ক্যাপশন : লামায় বিচার পতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদারকে গার্ড অব অনার প্রদান করেন, স্কুলের প্যারেড ও ব্যান্ড বাদক দল।

মো. নুরুল করিম আরমান, লামা প্রতিনিধি:

বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগের বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার বলেছেন, প্যারেড নৈপুণ্য ও শিক্ষা-ক্রীড়ায় সাফল্য দেখে মনে হচ্ছে তোমরা কোয়ান্টাম কসমো স্কুল ও কলেজের শিক্ষার্থীরাই আগামীর বাংলাদেশকে নেতৃত্ব দেবে। প্রাকৃতিক আবহে নিয়ম শৃঙ্খলার মধ্যে যেভাবে বেড়ে উঠছ, আসলে তোমরাই হবে জাতির ভবিষ্যৎ। কারণ দেশের দুর্গম একটি এলাকায় থেকে তোমরা অন্যদের তুলনায় এগিয়ে যাচ্ছ সাহসের সাথে, এটা সত্যি প্রশংসনীয়। এসবের জন্যে এ স্কুল ও কলেজের স্বপ্নদ্রষ্টা ও প্রতিষ্ঠাতা গুরুজী শহীদ আল বোখারী মহাজাতককে ধন্যবাদ জানান তিনি। বৃহস্পতিবার দিনগত জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস’২২ উপলক্ষে বান্দরবান জেলার লামা উপজেলার সরই ইউনিয়নস্থ কোয়ান্টাম কসমো স্কুল ও কলেজ কর্তৃক আয়োজিত এক আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন তিনি।

স্কুলের পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি অধ্যাপিকা আমেনা বেগমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন কোয়ান্টাম কসমো স্কুল ও কলেজের ইনর্চাজ সালেহ আহমেদ। এর আগে কোয়ান্টাম কসমো স্কুল ও কলেজ পরিদর্শনের পর হিকমান প্রাঙ্গণে বিচারপতিকে গার্ড অব অনার প্রদান করেন, স্কুলের প্যারেড ও ব্যান্ড বাদক দল। প্যারেড ও ব্যান্ড বাদনা দিয়ে বহু পুরস্কার ও প্রশংসা কুড়ানো কোয়ান্টাম কসমো স্কুলের কুচকাওয়াজ ও বাদন মুগ্ধ করে অতিথিসহ মাঠে উপস্থিত সফরসঙ্গীদের। সফরসঙ্গীদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন তার সহধর্মীনি শাহনাজ বাবলী। এরপর স্কুল ও কলেজের আন্তর্জাতিক মানের জিমনেসিয়ামে কোয়ান্টামের ক্ষুদে জিমন্যাস্টদের পারফরমেন্স অভিভূত করে বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদারকে।

প্রসঙ্গত, ২০০১ সালে মাত্র ৭জন শিক্ষার্থী নিয়ে যাত্রা শুরু করে কোয়ান্টাম কসমো স্কুলটি। ২০ বছরের পরিক্রমায় বর্তমানে এ স্কুল ও কলেজে আবাসিকে থেকে পড়াশোনা করছে তিন পার্বত্য জেলাসহ দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসা সুবিধাবঞ্চিত আড়াই সহস্রাধিক ছাত্র-ছাত্রী।