মোঃ জয়নাল আবেদীন টুক্কু,
শূকর না গুলিতে নিহত,নিশ্চিত হওয়া যাবে ময়না তদন্তের রির্পোটের পর জানা যাবে। আপাতত ঘটনায় অপমৃত্যুর মামলা রুজু হয়েঝে নাইক্ষ্যংছড়ি থানায়। যার নং ৪/২২
তারিখ: ১০ মার্চ। এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন থানার উপ-পরিদর্শক ও মামলার আইও আবু বক্কর।
তিনি আরো বলেন,দুর্গম কুরিক্ষ্যং শূকরঝিরিতে আবুল বশর মারা যান। তাকে উদ্ধার করে শুক্রবার সকালে ময়না তদন্তের জন্যে বান্দরবান পাঠানো হয়েছিলো। বিকেল ৫ টায় মৃত্যের অভিভাবকদের হাতে সোপর্দ করা হয়।
নাইক্ষ্যংছড়ি থানার নবাগত অফিসার ইনর্চাজ টান্টু সাহা মামলার পরপরই এ প্রতিবেদককে বলেন গুলিতে না শুকরের আক্রমনে মারা গেছে তা ময়না তদন্তের রির্পোটের পর বোঝা যাবে। এর আগে পর্যবেক্ষনে থাকবে সব কিছু।
পাহাড়ে শিকার করতে গিয়ে নিহত হওয়া আবুল বশনের বড় ছেলে আবু বক্কর ছিদ্দিক বলেন,তার বাবাকে ময়না তদন্ত শেষে শুক্রবার সন্ধ্যায় স্থানীয় কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে। তারা তার বাবার রহস্যাবৃত মরার ঘটনায় নিয়ে চিন্তিত। তবে ময়না তদন্তের রির্পোটের অপেক্ষায় রয়েছে বলেও উল্লেখ করেন বক্কর এ প্রতিবেদককের কাছে।
উল্লেখ্য,নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার কূরিক্ষ্যং-এ শূকরের হামলায় নিহত হয়েছে এক ঝাড়ু কাটুরিয়া। নিহতের নাম আবুল বশর(৪০)। সে পার্শ্ববতী রামুর কচ্ছপিয়ার দক্ষিণ মৌলভীকাটার পাহাড়পাড়া গ্রামের মৃত ছিদ্দিক আহমদের পুত্র। বুধবার সন্ধ্যায় এ ঘটনা ঘটে উপজেলার দোছড়ি ইউনিয়নের শূকরের ঝিরি নামকস্থানে।