আব্দুল্লাহ সায়েম:

শতভাগ উৎসব ভাতা ও জাতীয়করণসহ ৫ দফা দাবি নিয়ে শিক্ষক বন্ধন করেছে বাংলাদেশ মাধ্যমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধান পরিষদ কক্সবাজার জেলা শাখা।

কক্সবাজার জেলা শতাধিক মাধ্যমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধান ও শিক্ষকদের নিয়ে ১১ মার্চ (শুক্রবার) সাড়ে ১০ টার দিকে কক্সবাজার প্রেসক্লাবের সামনে এই শিক্ষক বন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

যে পাচ দফা দাবি নিয়ে শিক্ষকদের এই কর্মসূচি তা হলো

১। আসন্ন ঈদেই শতভাগ উৎসব ভাতা এবং বাড়ি ভাড়া প্রদান।

২। সরকারি স্কুলের প্রধান শিক্ষকদের ন্যায় বেসরকারি মাধ্যমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধানদের ষষ্ঠ গ্রেড এবং সহ প্রধানদের ৭ম গ্রেড প্রদান।

৩। মাধ্যমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধান ও সহ প্রধানদের দুটি উচ্চতর গ্রেড প্রদানের সুস্পষ্ট ঘোষণা প্রদান।

৪। বেসরকারি মাধ্যমিক শিক্ষকদের ঐচ্ছিক বদলি এবং প্রতিষ্ঠান প্রধান ও সহ প্রধানদের এন.টি. আর. সি. এ. এর মাধ্যমে নিয়োগের ব্যবস্থা গ্রহণ করুন।

৫। মাধ্যমিক শিক্ষা জাতীয়করণ

এসময় বক্তারা বলেন “শিক্ষা প্রতিষ্ঠানেও সরকারি আর বেসরকারি বৈষম্য খুবই দুঃখজনক। আজ বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো এতোটাই অবহেলিত যার জন্য শিক্ষকতার মতো এতো মহান পেশায় জড়িতদেরও দাবি আদায়ে মাঠে নামতে হয় যা খুবই অস্বস্তিকর। তারা আরও বলেন শিক্ষকদের এই ন্যায্য দাবী গুলো প্রধানমন্ত্রী বরাবর সঠিকভাবে পৌঁছাচ্ছে না বলেই বার বার মাঠে নামতে হচ্ছে। ”

তা ছাড়াও বক্তারা আরও বলেন ” পৃথিবীতে এমন কোনো দ্বৈত শিক্ষাব্যবস্থা নেই।এই শিক্ষাবান্ধব সরকার নিশ্চয়ই এই সৃজনশীল শিক্ষক বন্ধনের সবগুলো দাবি মেনে নিয়ে দেশের শিক্ষাব্যবস্থাকে বৈষম্যমুক্ত করে স্বাধীনতার জাতিকে আরও একধাপ এগিয়ে নিয়ে যাবে৷ ”

বাংলাদেশ মাধ্যমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধান পরিষদ কক্সবাজার জেলা শাখার সভাপতি হোসাইনুল ইসলাম মাতবরের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মোঃ রমজান আলীর সঞ্চালনায় উক্ত কর্মসূচিতে বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সহ-সভাপতি নুরুল আখের, ঈদগাহ আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা ও সংগঠনের সহ-সভাপতি খুরশিদুল জান্নাত, রামু উপজেলার সাঃ সম্পাদক মোঃ হোসাইন ও কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক নুরুল আবছারসহ অন্যান্যরা।

পরে আগামী ১৫’ই মার্চ জেলা প্রশাসক বরাবর স্বারকলিপি প্রদান করার ঘোষণা দেন তারা।